ডেস্ক: ঢাকে কাঠি পঞ্চায়েত ভোটের৷
মে মাসের শুরুতেই এ রাজ্যে ভোট হতে পারে ৷ ওই মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে শেষ হতে পারে ভোটপর্ব ৷ সূত্রের খবর, ভোট হতে পারে ৩ থেকে ৪ দফায়৷ বুধবার রাজ্য নির্বাচন কমিশনারকে রাজ্য সরকার জানিয়েছে, তারা রমজান মাস শুরুর আগেই ভোট শেষ করতে চায় ৷ গতবারের চেয়ে দু মাস আগে এবারের ভোট হতে পারে বলে জানা গিয়েছে ৷ গতবার ভোট হয়েছিল জুলাই মাসে৷ এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহে ভোটের বিজ্ঞপ্তি জারি করা হবে বলে জানা গিয়েছে।
বুধবার পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে সব দলের প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনা করেন রাজ্য নির্বাচন কমিশনার অমরেন্দ্রকুমার সিংহ৷ নির্বাচন কমিশনারকে রাজ্য সরকার জানিয়েছে, তারা রাজ্যের পুলিশ দিয়ে পঞ্চায়েত ভোট করাতে পারবে ৷ ছাপ্পান্ন হাজার পুলিশ মোতায়েন থাকবে৷ কেন্দ্রীয় বাহিনীর প্রয়োজন নেই ৷
সূত্রের খবর, মে মাসে পঞ্চায়েত ভোট করাতে চেয়ে রাজ্য সরকারই কমিশনকে চিঠি দিয়েছিল৷ এপ্রিলের নির্বাচন আধিকারিকের সঙ্গে বৈঠকে তৃণমূলের তরফে উপস্থিত ছিলেন সাংসদ সুব্রত বক্সি,বিধায়ক তাপস রায়্। বামেদের তরফে উপস্থিত ছিলেন বিধায়ক সুজন চক্রবর্তী, সুভাষ নস্কর৷ বিজেপির হয়ে এদিনের বৈঠকে যোগ দেন জয়প্রকাশ মজুমদার,প্রভাকর তেওয়ারি৷ কংগ্রেসের তরফে দেবব্রত রায়৷ রাজ্যের নির্বাচন আধিকারিক   এদিন বৈঠক করেন রাজ্যের মুখসচিব,স্বরাষ্ট্রসচিবের সঙ্গেও ৷ আলোচনা করেন জেলাশাসক,পুলিশ সুপারদের সঙ্গে ৷ এদিকে কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে ভোট করাতে রাজ্য সরকার রাজি না হওয়ায় সিপিএম বিধায়ক সুজন চক্রবর্তী রাজ্য সরকারের কড়া সমালোচনা করে বলেন, যারা রামনবমীই সামলাতে পারে না, তারা পঞ্চায়েত ভোট সামলাবে কী করে৷ তারা দাবি তোলেন পঞ্চায়েত ভোট করতে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করার৷