ডেস্ক: জট কাটছে না পঞ্চায়েতের। গত মঙ্গলবার সুপ্রিমকোর্টের বিচারপতি ওয়াই চন্দ্রচূড় অসুস্থ থাকার জন্য স্থগিত হয়ে যায় পঞ্চায়েয়ত মামলার শুনানি। এরপর শুক্রবার ফের বিচারপতি অজয় খানউইলকর অসুস্থ থাকার কারণে শুনানি পিছিয়ে গেল পঞ্চায়েত মামলা। আগামি সোমবার এই মামলার শুনানি হবে বলে জানা যাচ্ছে আদালতের তরফে।

এদিকে, যত দিন যাচ্ছে জটিলতা বেড়ে চলেছে ঠিক ততটাই। কারণ বৃহস্পতিবার থেকে রাজ্যে বিভিন্ন পঞ্চায়েতের মেয়াদ শেষ হতে শুরু করেছে। কমিটি গঠন না হলে কাজকর্ম ব্যাঘাত হওয়ার সম্ভাবনা পঞ্চায়েতগুলিতে ফলে আপাতভাবে পঞ্চায়েতের কাজকর্ম স্বাভাবিক রাখার জন্য রাজ্য সরকারের তরফে পঞ্চায়েতের দেখভালের দায়িত্ব দেওয়া হতে চলেছে বিডিও, এসডিও এবং জেলাশাসককে। পঞ্চায়েত দপ্তর সূত্রে জানা যাচ্ছে, শুক্রবার বিকেলেই এই সংক্রান্ত নির্দেশিকা জারি করা হবে সরকারের তরফে। পঞ্চায়েত দপ্তরের তরফে আরও জানা গিয়েছে, আপাতভাবে গ্রাম পঞ্চায়েতে বিডিও, পঞ্চায়েত সমিতিতে এসডিও এবং জেলা পরিষদে জেলাশাসকদের প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ করা হবে। আর যেসব গ্রাম পঞ্চায়েতে সব আসনে ভোট হয়েছে, সেখানে বৃহস্পতিবার থেকে বোর্ড গঠনের কাজ শুরু হয়েছে।

পঞ্চায়েত আইন অনুযায়ী, বোর্ড গঠনের প্রথম মিটিংয়ের পাঁচ বছর পূরণ হতেই ওই বোর্ডের মেয়াদ শেষ হয়ে যায়। সেই সব বোর্ডে সব আসনে ভোট হলে, সেখানে নতুন করে বোর্ড গঠন করা হবে। আর যেখানে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হওয়ার ঘটনা ঘটেছে, সেখানে প্রশাসক বসানো হবে। অর্থাৎ সরকারি অফিসারদের দিয়েই গ্রামীণ স্তরে কাজ হবে বলে সরকারি সূত্রে জানা যাচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here