ডেস্ক: লোকসভা যত এগিয়ে আসছে বঙ্গীয় রাজনীতিতে ঘাসফুলের অন্দরে ভিড় বেড়ে চলেছে ব্যাপকভাবে। রাজ্যে শুভেন্দু অধিকারীর হুঁশিয়ারির পর কংগ্রেসের অন্যতম ঘাঁটি বলে পরিচিত অধীরগড় মুর্শিদাবাদ ও মালদায় রীতিমতো ফাঁকা হয়ে গিয়েছে হাত চিহ্ন। বিভিন্ন দল থেকে তৃণমূলে নাম লিখিয়েছেন বহু নেতানেত্রীরা। এবার সেই তালিকার নবতম সংযোজন হতে চলেছেন কোচবিহার জেলার সিপিএম আমলের প্রাক্তন খাদ্যমন্ত্রী তথা ফরওয়ার্ড ব্লকের হেভিওয়েট নেতা পরেশ অধিকারী। খুব শীঘ্রই তিনি তৃণমূলে যোগ দিতে পারেন বলে গুঞ্জন শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে।

সাম্প্রতিক সময়ে রাজনৈতিক দিক থেকে বারে বারেই খবরের শিরোনামে উঠে আসছে উত্তরের এই জেলা। একদা বামের শরিক দল ফরওয়ার্ড ব্লক থেকে এই এলাকায় তৃণমূলে একে একে ভিড় জমিয়েছেন হীতেন বর্মন, উদয়ন গুহ সহ একাধিক রাজনৈতিক নেতা। যার জেরে যুব তৃণমূল ও আদি তৃণমূলের মধ্যে ব্যাপক ভাবে গোষ্ঠী সংঘর্ষ প্রকাশ্যে উঠে এসেছে। এদিকে, সেটাকেই হাতিয়ার করে কোচবিহার জেলায় ভালো রকম শক্তি বাড়িয়েছে বিজেপি। তাই সমস্ত পরিস্থিতি ঠাণ্ডা করার জন্য এক যোগ্য নেতৃত্বকে চাইছে তৃণমূল। আর সেই পদের জন্য পরেশ অধিকারীকে বেশ উপযুক্ত বলেই ভেবেছে তৃণমূল। এমনটাই জানা যাচ্ছে সুত্র মারফৎ।

শুধু তাই নয়, ফরওয়ার্ড ব্লকের এহেন প্রভাবশালী নেতা পরেশ অধিকারীকে চ্যাংরাবান্দা উন্নয়ন বোর্ডে চেয়ারম্যান করার কথা ঘোষণা করা হয়েছে রাজ্য প্রশাসনের তরফে। এক্ষেত্রে মেখলিগঞ্জের তৃণমূল বিধায়ক অর্ঘ রায়প্রধানকে সরিয়ে পরেশ অধিকারীকে এই পদে বসানো হয়েছে। ফলে রাজনৈতিক মহলে পরেশ অধিকারীর তৃণমূলে যোগ দেওয়া নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে। তবে তৃণমূলে যোগদান প্রসঙ্গে কোনও রকম মুখ খুলতে নারাজ কোচবিহারের এই হেভিওয়েট নেতা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here