ডেস্ক: রাজ্যে লোকসভা নির্বাচন উপলক্ষ্যে কেন্দ্রীয় বাহিনীর আগমনকে স্বাগত জানিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যদিও তৃণমূলের তরফে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে এভাবে অভ্যর্থনা প্রসঙ্গে গতকালই কটাক্ষের সুরে দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন, ‘উপায়ান্ত না দেখেই এই অভ্যর্থনা।’ দিলীপের সেই দাবিই এবার প্রমাণিত হল তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের মন্তব্যে। এদিন নজরুল মঞ্চে তৃণমূলের এক কর্মসভায় পার্থর অভিযোগ, ‘রাজ্যে আতঙ্কের পরিবেশ তৈরি করছে আধা সেনা। কাশ্মীরের থেকেও বেশি সেনা নামানো হয়েছে রাজ্যে।’

রবিবার নজরুল মঞ্চে মালা রায়ের কর্মীসভায় উপস্থিত হয়ে বিজেপিকে আক্রমণ করে পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানান, ‘বিজেপি বাংলায় বাহুবলী হওয়ার চেষ্টা করছে। মিডিয়াকে নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করছে। তবে, বিজেপি যাই করুক না কেন, বাংলায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নেতৃত্বে রয়েছেন। এখানে বিজেপির কোন চালই কাজে আসবে না।’ পাশাপাশি, কেন্দ্রীয় বাহিনী প্রেক্ষিতে পার্থ বলেন, ‘কাশ্মীরের থেকেও বেশি সেনা নামানো হয়েছে রাজ্যে। রুট মার্চের নামে এলাকায় এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করছে কেন্দ্রীয় বাহিনী।’ পার্থর সঙ্গে গলা মিলিয়ে কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে আক্রমণ শানাতে দেখা যায় তৃণমূল নেতা মদন মিত্রকেও। তিনি বলেন, কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে নামতেও তিনি দ্বিধা করবেন না।

প্রসঙ্গত, রাজ্যে এবার শান্তিপূর্ণ ভোটের দাবিতে নির্বাচন কমিশনের কাছে একদফা পদক্ষেপ নেওয়ার আবেদন জানিয়েছে বিরোধীরা। যেখানে কেন্দ্রীয় বাহিনী তো বটেই, রাজ্যের সমস্ত বুথকে অতি স্পর্শকাতর বলে ঘোষণা করার দাবি উঠেছে বিজেপির তরফে। এদিকে শান্তিপুর্ণ ভোটের লক্ষ্যে শুক্রবার থেকেই রাজ্যে নামানো হয়েছে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে। নিয়ম করে এলাকাবাসীর মনে সাহস যোগাতে রুট মার্চ করছে তারা। আর সেই রুটমার্চকে হাতিয়ার করেই কেন্দ্রীয় বাহিনীকে একহাত নিয়ে নির্বাচন কমিশনকে কটাক্ষ করলেন পার্থ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here