ক্ষমতালোভী বলে বিজেপিকে বিঁধলেন পার্থ, মান্নানের কথায়, ‘তৃণমূলের বিষবৃক্ষ রোপণ করার ফল’

0
4
kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: বিজেপির বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক রাজনীতির অভিযোগ তুলে রাজ্যে শান্তি ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষার ওপর জোর দিয়ে আজ দুটি পৃথক প্রস্তাব রাজ্য বিধানসভায় গৃহীত হয়েছে। দুটি প্রস্তাবের ওপর যৌথ আলোচনায় অংশ নিয়ে সরকার পক্ষের সঙ্গে সুরে সুর মিলিয়ে বিরোধী বামফ্রন্ট ও কংগ্রেস সদস্যরা বিজেপির বিরুদ্ধে ধর্মকে ব্যবহার করে বিভেদের রাজনীতি করার অভিযোগ তোলেন।

অন্যদিকে, বিজেপি সাম্প্রদায়িকতা ইস্যুতে রাজ্য সরকারের পাল্টা সমালোচনা করেছে। সরকারপক্ষের প্রস্তাবটি আলোচনার জন্য সভায় উত্থাপন করে পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় অভিযোগ করেন, বিজেপি অর্থ ও ধর্মকে ব্যবহার করে এ রাজ্যে ক্ষমতা দখল করতে চাইছে। সাম্প্রদায়িকতা বাহুবলী রূপ নিয়ে রাজ্যে প্রবেশ করছে। একে রুখতে বিভেদ ভুলে বিজেপি বিরোধী সব দলকে এক সঙ্গে লড়াই করার ডাক দেন তিনি। রাজ্যের বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান সাম্প্রদায়িক রাজনীতিকে রুখতে সকলকে একজোট হওয়ার কথা বললেও এ রাজ্যে বিজেপির উত্থান এর জন্য তৃণমূল কংগ্রেসকেই দায়ী করেন। তিনি বলেন, বিষবৃক্ষরোপণ করলে সকলকেই তার ফল ভোগ করতে হয়। বাম পরিষদীয় দল নেতা সুজন চক্রবর্তী বিজেপির বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িকতা প্রসারের পাশাপাশি স্বৈরাচারী মানসিকতার প্রসার সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান ধ্বংস ও নাগরিক অধিকার খর্ব করার অভিযোগ তুলেছেন। ধর্মকে রাজনীতির আঙিনায় নিয়ে এলে রাজনীতি কলুষিত হয় বলে তিনি মন্তব্য করেন। বিজেপির জয় শ্রীরাম স্লোগান এর পাল্টা শাসকদলের জয় বাংলা স্লোগান দেওয়ার প্রসঙ্গ তুলে ও সুজন বাবু তার নিন্দা করেছেন।

বিজেপির মনোজ টিগ্গা তার দলের বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িকতার অভিযোগ খারিজ করতে গিয়ে বলেন, বিজেপি মানুষের মধ্যে বিভাজন করে না। দেশের ১৩০ কোটি মানুষের কথা ভাবে। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখা রাজ্যের দায়িত্ব বলেও তিনি মন্তব্য করেন। মন্ত্রী পূর্ণেন্দু বসু ফিরহাদ হাকিম প্রমুখ আলোচনায় অংশ নেন। আলোচনা শেষে প্রস্তাব দুটি বিধান সভায় গৃহীত হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here