kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, ব্যারাকপুর: এক মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীর রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল ব্যারাকপুরের পলতায়। ঘটনাটি ঘটেছে টিটাগড় থানার পলতা বাবনপুর এলাকায়। মৃত পরীক্ষার্থীর নাম শ্রীদীপ সমাদ্দার(১৭)। গতকাল রাত থেকে সে নিখোঁজ ছিল। শুক্রবার সকালে এক প্রতিবেশী ওই এলাকায় অসমাপ্ত গঙ্গা অ্যাকশন প্ল‍্যান্ট প্রকল্পের কাছে পুকুরের পাড়ে তার চটি ও মাস্ক পড়ে থাকতে দেখেন। এরপরই পুকুরের মধ্যে থেকে রক্তাক্ত দেহটি মেলে। মৃতের মা মনিমালা সমাদ্দার বলেন, সন্ধ্যা ৭টার সময় ছেলে একবার বাড়ি এসে বলল চা-মুড়ি খাব। কিন্তু কারও ফোন পেয়ে বেরিয়ে গেল।

ওর বাবা ৮টার সময় ফোন করলে ধরেনি। ওর মোবাইল থেকে কেউ একজন ফোন করে বলে, এখনই সাড়ে তিন লাখ টাকা না নিয়ে আসলে ছেলেকে মেরে ফেলা হবে। যারা এই মুক্তিপণ চাইতে ফোন করেছিল, পুলিশকে যাতে না জানানো হয়,  সেটাও বারবার ফোনে বলা হচ্ছিল। তারপরই এই সম্পূর্ণ ঘটনাটি পুলিশকে জানানো হয়। এরপরই শ্রীদীপের বাবা সুকুমার সমাদ্দার রাতে টিটাগড় থানায় গিয়ে বিষয়টি জানান। প্রথমে পুলিশ অভিযোগ নিতে রাজি হয়নি। এবং রাতে ঘটনাস্থলেও আসেনি। এরপর অনেক রাত পর্যন্ত খোঁজ চালায় এলাকার মানুষ। মৃতের পরিবারের অভিযোগ, রাতে পুলিশ ব্যবস্থা নিলে ছেলেকে খুন হতে হতো না। শ্রীদীপের মৃত্যুর জন্য বন্ধুদেরকে দায়ী করেছেন মনিমালাদেবী।

প্রাথমিক তদন্তে শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়েছে বলে অনুমান পুলিশের। ঠিক কী কারণে খুন, তা খতিয়ে দেখছে টিটাগড় থানার পুলিশ। আজ মৃতের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যান বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং। তিনি বলেন, আমরা এই পরিবারের পাশে আছি। আমরা পুলিশ-প্রশাসনকে বলব গঙ্গা অ্যাকশন প্ল্যান্টের এই জায়গাটা এত বছর ধরে পড়ে আছে। এইখানে দুষ্কৃতীদের আখড়া হয়ে গেছে। সেই দিকে যেন নজর দেয়। পুলিশ অবশ্য জানিয়েছে, ঘটনার তদন্ত চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here