ডেস্ক: ফের মন্দসৌর ঘটনার স্মৃতি উস্কে দিল দিল্লির একটি ন্যাক্কারজনক ঘটনা। বাব-মা’র অনুপস্থিতিতে কিশোর দাদার যৌন লালসার শিকার ৮ বছরের বোন। সোমবার যৌনাঙ্গে গুরুতর ক্ষত নিয়ে হাসাপাতালে ভর্তি ওই নির্যাতিতা। অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে দিল্লি পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে দিল্লির অশোকনগর এলাকায়। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই নির্যাতিতার বাবা-মা পেশায় দিনমজুর ছিল। রোজকার মতো সেদিন সকালে ছেলে মেয়েকে রেখে কাজে বেরিয়ে গিয়েছিলেন। তারা বেরিয়ে যেতেই ছোট বোনের উপর নারকীয় অত্যাচার চালায় ওই অভিযুক্ত কিশোর। এরপর বাবা মা ফিরে মেয়েকে রক্তাক্ত অবস্থায় মেঝের উপর পড়ে থাকতে দেখেন। দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যান ওই শিশুকন্যাকে।

চিকিৎসকরা প্রাথমিক চিকিৎসার পরই জানিয়ে দেন ওই নাবালিকার উপর যৌন হেনস্থা চালানো হয়েছে। মেয়েটি প্রাথমিক চিকিৎসার পর পুলিশকে বয়ান দিয়েছে ,দাদাই এইরূপ নারকীয় অত্যাচার চালিয়েছে তাঁর উপর। তাঁর এই অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ অভিযুক্ত নাবালককে গ্রেফতার করেছে। বর্তমানে নির্যাতিতা নাবালিকার শারীরিক অবস্থা বেশ জটিল বলে হাসপাতাল সূত্রে জানানো হয়েছে।

দিল্লির মহিলা কমিশনের প্রধান স্বাতী মালিওয়াল বুধবারই তাকে দেখতে হাসপাতালে যান। তিনি বলেন, ‘ওই নাবালিকার শারীরিক অবস্থা বেশ জটিল। অবস্থা শিথিল না হওয়া পর্যন্ত চিকিৎসকরা অস্ত্রপচার চালাতে পারছেন না। ওই মেয়েটির মা-বাবা পেশায় দিনমজুর। তাই চিকিৎসার খরচ খরচা চালানো বেশ মুশকিল হয়ে পড়েছে।’ তিনি আরও বলেন, দেশ জুড়ে মহিলা ও কশোরীদের উপর হওয়া অত্যাচারের ঘটনা দিনদিন বেড়েই চলেছে। সরকারের উচিত ওই ধর্ষকেদের কড়া সাজা দেওয়া। দিল্লি পুলিশের এক পরিসংখ্যান বলছে প্রতিদিন রাজধানীতে অন্তত দু’জন করে শিশুকন্যাকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়। ২০১৭র এপ্রিল পর্যন্ত রাজধানীতে শিশুকন্যা ধর্ষণের মোট ২৭৮টি কেস ফাইল করা হয়েছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here