kolkata news
Parul

নিজস্ব প্রতিনিধি : দেশের পরবর্তী রাষ্ট্রপতি শরদ পাওয়ার! তাঁকেই রাষ্ট্রপতি পদে অভিষিক্ত করতে উদ্যোগী হয়েছেন প্রশান্ত কিশোর ওরফে পিকে! সম্প্রতি কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধি, প্রিয়ঙ্কা গান্ধি বঢরা এবং বেণুগোপালের সঙ্গে পিকের বৈঠকের পরে এই জল্পনাই ছড়িয়েছে। পর্যবেক্ষকদের মতে, পাওয়ারকে রাষ্ট্রপতি পদে বসিয়ে তৃতীয় ফ্রন্টের উদ্যোগে শান দিতে চাইছেন পিকে।

ads

গত এক মাসে তিনবার পাওয়ারের সঙ্গে বৈঠক করেছেন পিকে। দুবার পিকে একাই কথা বলেছেন পাওয়ারের সঙ্গে। পরে পাওয়ারের দিল্লির বাড়িতে আঞ্চলিক আরও কয়েকটি দলের নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন পিকে। তার পরেই জল্পনা ছড়ায় তৃতীয় ফ্রন্টের সম্ভাবনা নিয়ে। যদিও বৈঠক শেষে পাওয়ার জানিয়ে দেন কংগ্রেসকে বাদ দিয়ে কোনও উদ্যোগই সফল হবে না। কারণ দুর্বল হলেও দেশের সব রাজ্যে সংগঠন রয়েছে একমাত্র কংগ্রেসেরই।

দিল্লির একটি সূত্রে খবর, তৃতীয় ফ্রন্টের চেয়েও পিকের পাখির চোখ পাওয়ারকে রাষ্ট্রপতি পদে অভিষিক্ত করা। কেন পাওয়ার? পর্যবেক্ষকদের মতে, রাষ্ট্রপতি পদে একমাত্র পাওয়ারেরই পিছনে মিলবে বিভিন্ন আঞ্চলিক দলের সমর্থন। তিনি বর্ষীয়ান নেতা। দীর্ঘ সাংসদ জীবনের অভিজ্ঞতাও রয়েছে তাঁর ঝুলিতে। রাজনৈতিক জীবনের দীর্ঘতম ইনিংস তিনি খেলেছেন কংগ্রেসে থাকাকালীন। কয়েক বছর আগে কংগ্রেস ছেড়ে বেরিয়ে তিনি জন্ম দেন এনসিপির। রাষ্ট্রপতি পদে তাঁকে লড়িয়ে দেওয়া হলে কংগ্রেস তো বটেই, সমর্থন মিলবে জগমোহন রেড্ডি, অরবিন্দ কেজরিওয়াল, এম কে স্ট্যালিন এবং উদ্ধব ঠাকরের। দিন কয়েক আগে পিকে নিজে দেখা করেছেন স্ট্যালিনের সঙ্গে। নবীন পট্টনায়েকের সঙ্গেও দেখা করেছেন তিনি। এঁরা এবং আরও কয়েকটি বিরোধী দলকে এক ছাতার তলায় আনতে পারলেই কেল্লাফতে। আগামী বছর রাষ্ট্রপতি পদে পাওয়ারের জয় নিশ্চিত। সেই সঙ্গে নিশ্চিন্ত হওয়া যাবে ২০২৪ এ বিরোধী ঐক্য নিয়েও। এখন দেখার, পিকে জাদুতে মাত হন কি না বিরোধীরা!    

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here