kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক:সবসময় গো মাতা করলে হবে? দেশের নারীদের দিকটা একটু গুরুত্ব দিয়ে দেখুন৷ মিস কোহিমা প্রতিযোগিতার মঞ্চ থেকে প্রদানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উদ্দেশে এমনটাই বললেন এক অষ্টাদশী প্রতিযোগী৷ তাঁর এমন উত্তর শুনে হেসে ওঠেন উপস্থিত দর্শকরা। এখনও পর্যন্ত ভিডিওটি ৬০,০০০-এরও বেশি মানুষ টুইটারে দেখেছেন এবং তা হাজার হাজার ‘লাইক’ পেয়েছে। তিনি এই প্রতিযোগিতায় তৃতীয় স্থান পেয়েছেন৷

চলতি মাসের ৫ তারিখ নাগাল্যান্ডের রাজধানীতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিরউদ্দেশে এক বার্তা দিলেন। প্রশ্নোত্তর পর্বে ওই প্রতিযোগী ভিকুওনুয়ো সাচুর কাছে জানতে চাওয়া হয়, যদি প্রধানমন্ত্রী মোদীর সঙ্গে কথা বলার সুযোগ পান তাহলে তাঁকে আপনি কী বলবেন? এর উত্তরে ওই তরুণী যা বলেছেন, তার ভিডিও অনলাইনে ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। অষ্টাদশী বলেন, ‘‘আমি যদি ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলার জন্য আমন্ত্রিত হই, আমি ওঁকে বলব গরুর থেকে মহিলাদের প্রতি বেশি যত্নবান হোন।” তাঁর এমন উত্তর শুনে হেসে ওঠেন উপস্থিত দর্শকরা। উল্লেখ্য গত কয়েক বছর ধরে স্বঘোষিত গো-রক্ষকদের হাতে অভিযুক্ত গরু পাচারকারীদের নিগ্রহের ঘটনা বারবার সামনে এসেছে। গোরক্ষকদের তাণ্ডব শুরু হয়েছে ২০১৪ সালে দিল্লির মসনদে নরেন্দ্র মোদীর প্রথন প্রধানমন্ত্রী অভিষেকের সময়৷ এক সময় প্রধানমন্ত্রী গোরক্ষকদের উদ্দেশ হিংসা থামানোর আবেদন জানিয়েছিলেন৷ তবে এতে কোনও কাজ হয়নি৷ বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এই গোরক্ষকদের গণপিটুনিতে শাসকদল বিশেষ করে বিজেপির প্রছন্ন মদত থাকে৷ তাই এরা বছরের পর বছর অপরাধ করে পাড় পেয়ে যায় বলে অভিযোগ করে আসছেন বিরোধীরা৷

গো রক্ষক ও রাম সেনার গণপিটুনি(লিঞ্চিং) নিয়ে অপর্ণা সেন, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ে থেকে শুরু করে নাসিরুদ্দিন শাহ প্রমুখ প্রায় শ’দুয়েক বুদ্ধিজীবী দুটি আলাদাভাবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি লিখে এই বিষয়ে যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়ার অনুরোধ জানান৷ তাতে অবশ্য প্রধানমন্ত্রীর কোনো হেলদোল হয়নি৷ উল্টে তিনি বেজায় অসন্তুষ্ট হয়েছেন৷ তাই গত ৫ সেপ্টেম্বরে এক সভায় কারও নাম না করে তিনি সাফ জানান, এটা দুর্ভাগ্যের যে কোনও কোনও মানুষ ‘‘ওম” বা ‘‘গরু” কথাগুলো শুনলেই চমকে ওঠেন।জাতীয় পশু রোগ নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচির উদ্বোধন করতে এসেতংআর সোজা প্রশ্ন, ‘কিছু মানুষ, যদি তাঁরা ‘গরু’ এবং ‘ওম’-এর মতো শব্দ শোনেন, তাহলে তাঁদের চুল খাড়া হয়ে যায়। তাঁরা ভাবতে থাকেন দেশ ষোড়শ শতাব্দীতে ফিরে যাচ্ছে। পশুদের ছাড়া গ্রামীণ অর্থনীতির কথা কি কেউ বলতে পারবেন?’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here