মহানগর ওয়েবডেস্ক: সুদীর্ঘ ২৯ বছর পর অযোধ্যায় পা রাখলেন নরেন্দ্র মোদী। আজ রাম মন্দিরের ভূমিপূজা উপলক্ষ্যে অযোধ্যায় এলেন তিনি। ১৯৯০ সালে রাম মন্দির আন্দোলনের সময় শেষবার অযোধ্যা এসেছিলেন মোদী। তারপর যতদিন রাম মন্দির নিয়ে বিতর্ক চলেছে, অযোধ্যায় পা রাখেননি মোদী। শেষমেষ আজ ভূমিপূজা উপলক্ষে রামের জন্মস্থানে এলেন প্রধানমন্ত্রী।

আজ সকালে দিল্লি থেকে লখনৌ বিমানে এসে পৌঁছান মোদী। তারপর সেখান থেকে হেলিকপ্টার করে আসেন অযোধ্যা। তাঁর পরনে সোনালী পাঞ্জাবি ও সাদা ধুতি। সঙ্গে কমলা উত্তরীয়। উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের সঙ্গে সবার আগে তিনি যান বিখ্যাত হনুমানগড়ি মন্দিরে। সেখানে বেশ অনেকক্ষণ প্রার্থনা করেন তিনি। শেষে একেবারে সাষ্টাঙ্গে প্রণাম করেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রসঙ্গত, আজকের অনুষ্ঠান শুরু হয়েছে সকাল ১১টায়। চলবে দুপুর ২টা পর্যন্ত। সকাল ৯টার মধ্যে সব অতিথিরা পৌঁছে গিয়েছেন। অনুষ্ঠানের মূল মঞ্চে থাকবেন পাঁচজন – নরেন্দ্র মোদী, মোহন ভাগবত, রাম জন্মভূমি তীর্থক্ষেত্র ট্রাস্টের প্রধান, যোগী আদিত্যনাথ ও আনন্দিবেন পাটিল। ভূমিপূজা হবে ১২.৩০ নাগাদ ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন হবে ১২.৪০ নাগাদ।

অনুষ্ঠানের জন্য দেশের ২০০০টি তীর্থক্ষেত্র থেকে মাটি ও ১০০টি নদী থেকে জল নিয়ে যাওয়া হয়েছে। রাম মন্দির নির্মিত হবে উত্তর ভারতীয় নাগারা শৈলীতে। এর পাঁচটি চূড়া হবে। ২০২৩-২৪ সালের মধ্যে এই রাম মন্দির নির্মাণ সম্পন্ন হবে। সুপ্রিম কোর্টের বিচারের সময় মন্দিরের যে আকার ছিল, আদতে তার থেকেও দ্বিগুণ আকারের রাম মন্দির নির্মাণ করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here