মহানগর ডেস্ক: দেশে অতিমারিতে মোট মৃত্যু ২ লক্ষ ২২ হাজার ৪০৮। অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন তৈরি হতে চলেছে ২০ হাজার কোটি টাকার বিনিময়ে। ২০২২-এর মধ্যে যাতে কাজ সম্পন্ন করা যায় তার জন্য দেওয়া হয়েছে বিশেষ ছাড়। ওষুধ, সব্জি ইত্যাদি যেমন জরুরি পরিষেবা, তেমনই প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন নির্মাণের কাজকেও দেওয়া হয়েছে জরুরি পরিষেবার মর্যাদা।

অক্সিজেনের অভাবে দিল্লিতে মৃত্যু হচ্ছে চিকিৎসারত রোগীদের। ১৬ হাজারের বেশি মৃত্যু হয়েছে সেখানে। সেই মৃত্যুপুরী দিল্লিতেই তৈরি হতে চলেছে প্রধানমন্ত্রী ২০ হাজার কোটি টাকার বিলাসবহুল বাসভবন। বিরোধীদের পক্ষ থেকে প্রবল সমালোচনা করা হয়েছিল এই নির্মাণ কাজের বিরুদ্ধে। কিন্তু কে শোনে কার কথা! নিজের সিদ্ধান্তেই যথারীতি অবিচল কেন্দ্র। দেশের শ্মশানে যখন মৃতদেহ রাখার জায়গা পাওয়া যাচ্ছে না, তখনই শুরু করতে হবে এই নির্মাণ কাজ। ‘জরুরি পরিষেবা’।

সম্প্রতি পরিবেশ মন্ত্রকের পক্ষ থেকে দেওয়া হয়েছে সবুজ সংকেত। তাই আর দেরি করতে চাইছে না সরকার। শুভস্য শীঘ্রম। ২০২২ সালের মধ্যে গোটা পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। ডিসেম্বরের শুরুর দিকে তৈরি হবে প্রথম ভবন। যা প্রধানমন্ত্রী অফিস হিসেবে ব্যবহার করা হবে। প্রধানমন্ত্রী নিরাপত্তার জন্য নিয়োজিত বিশেষ নিরাপত্তা বাহিনীর জন্য রাখা হচ্ছে আলাদা ব্যবস্থা। বর্তমানে তাঁর বাসভবনের ঠিকানা ৭, লোক কল্যাণ মার্গ। নতুন বাড়ি সেখান থেকে কিছুটা দুরত্বেই। সামনের বছর মে মাসে তৈরি করা হতে পারে সহ-সভাপতির বাড়ি। শুধুমাত্র নতুন ভবনগুলো নির্মাণের জন্য খরচ করা হতে পারে প্রায় ১৪ হাজার কোটি টাকা। ৪৬ হাজার শ্রমিককে লাগানো হতে পারে কাজে।

মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় সরকারের দেওয়া রিপোর্ট অনুযায়ী ভারতে একদিনে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লক্ষ ৫৭ হাজার ২২৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ৪৪৯ জনের। দেশে এখনও সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৩৪ লক্ষ ৪৭ হাজার ১৩৩। এখনও পর্যন্ত মোট মৃত্যু ২ লক্ষ ২২ হাজার ৪০৮। মোট করোনা আক্রান্ত্রের সংখ্যা ২ কোটি ২ লক্ষ ৮২ হাজার ৮৩৩।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here