ধর্ষণের ঘটনায় অভিযোগ না নেওয়ায় পুলিশের বিরুদ্ধে ক্ষোভ ছড়াল খেজুরিতে

0
152
kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, তমলুক: স্নান সেরে নিজের বাড়িতে কাপড় ছাড়তে গিয়ে প্রতিবেশী যুবকের হাতে ধর্ষণের শিকার হলেন এক গৃহবধূ। ঘটনার জেরে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। তার থেকেও বেশি ক্ষোভ দেখা দেয় স্থানীয় থানার পুলিশের বিরুদ্ধে তারা ঘটনার অভিযোগ নিতে অস্বীকার করায়। যদিও পরে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে ঘটনাটি নিয়ে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয় নির্যাতিতার পরিবারের তরফে। ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার খেজুরি থানার মোহাটি গ্রামে।

জানা গিয়েছে, বুধবার সকাল দশটা তিরিশ নাগাদ ওই গৃহবধূ বাড়ির পাশের পুকুরে স্নান করতে গিয়েছিলেন। সেই সময়েই প্রতিবেশী যুবক সদীপ্ত জানা তাকে কু-প্রস্তাব দেয়। তাতে রাজি না হয়ে ওই মহিলা পুকুরে চলে যান স্নান করতে। স্নান সেরে তিনি বাড়িতেই ফিরে আসেন ও নিজের ঘরে গিয়ে ভেজা কাপড় ছেড়ে শুকনো কাপড় পড়ার তোড়জোড় করছিলেন। ওই সময় বাড়িতে তিনি ছাড়া আর কেউ ছিল না। অভিযোগ, সেই সুযোগেই সুদীপ্ত বাড়িতে ঢুকে পিছন থেকে ওই গৃহবধূর ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। নিজের পকেট থেকে ছুরি বের করে তা দেখিয়ে ওই মহিলা যাতে চিৎকার করতে না পারেন সেই জন্য তার মুখে রুমাল গুঁজে দেয় সুদীপ্ত। এরপর ওই মহিলারই শাড়ি দিয়ে তার হাত-পা বেঁধে উপর্যপরি তাকে ধর্ষণ করে সুদীপ্ত। কিন্তু ঘটনাটি বাড়ির জানলা দিয়ে দেখে নেন পাশের বাড়িরই এক গৃহবধূ। তিনি দ্রুত পাড়ার লোকদের নিয়ে ওই নির্যাতিতার বাড়িতে এলে তখন সুদীপ্ত পালিয়ে যায়।

পাড়ার লোকেরাই আশঙ্কাজনক অবস্থায় সঙ্গে সঙ্গে ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে কাঁথি মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে নিয়ে যায়। চিকিৎসা করার পরে ওই মহিলা কাঁথি থানায় যান অভিযোগ জানানোর জন্য। কিন্তু অভিযোগ ওঠে ধর্ষণের শিকার হওয়া ওই মহিলার অভিযোগ থানায় কর্মরত পুলিশ আধিকারিকেরা নিতে অস্বীকার করেন। তার জেরে স্থানীয় স্তরে উত্তেজনা ছড়ালে নির্যাতিতার পরিবারের তরফে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে গিয়ে তাকে সবকিছু জানায়। পরে সেখানেই লিখিত অভিযোগ জানায় দোষীর শাস্তির দাবিতে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here