kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, নদিয়া: স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে খুনের অভিযোগে গ্রেফতার স্বামী। ঘটনাটি ঘটেছে নদিয়ার নবদ্বীপ থানার দেয়ারাপাড়া রোডে। অভিযুক্ত স্বামীর নাম রামানন্দ সাহা। শনিবার খুনের অভিযোগে ধৃতকে নবদ্বীপ আদালতে তোলা হয়। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, পেশায় ভ্যানচালক অভিযুক্ত রামানন্দ সাহা তার স্ত্রী অনিমা সাহা এবং তাদের সাত বছরের মেয়েকে নিয়ে নবদ্বীপ পুরসভার ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের দেয়ারাপাড়া রোডের উজ্জল দাসের বাড়িতে এক বছর যাবৎ ভাড়া থাকত। শুক্রবার সাড়ে দশটা নাগাদ ওই বাড়ির বাড়িওয়ালা তাদের কোনও সাড়াশব্দ না পেয়ে তাদের ঘরের দিকে যান। সেখানে গিয়ে দরজা খুলে দেখতে পান, বিছানার ওপর ওই গৃহবধূকে চাদর দিয়ে ঢাকা অবস্থায় রাখা আছে। পায়ের নিচে রয়েছে পাশ বালিশ। ঘরের মেঝেতে পড়ে আছে একটি লইলনের বড় দড়ি।

এরপর বাড়ির মালিক উজ্জ্বল দাস স্থানীয় কাউন্সিলরকে বিষয়টি জানান। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে নবদ্বীপ থানার পুলিশ। তারাই অনিমাদেবীকে উদ্ধার করে নবদ্বীপ স্টেট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। যদিও ঘটনার পর থেকে রামানন্দ সাহা তার সাত বছরের শিশুকন্যাকে নিয়ে বেপাত্তা হয়ে যায়। বাড়ির মালিক উজ্জ্বল দাস নবদ্বীপ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। বলেন ভাড়াটিয়া রামানন্দ সাহা তার স্ত্রী অনিমাকে খুন করে শিশুকন্যাকে নিয়ে পালিয়ে গিয়েছে।

জানা গিয়েছে, রামানন্দ সাহা ভ্যান চালিয়ে ভালই উপার্জন করত। লকডাউনে দীর্ঘদিন কোনও কাজকর্ম ছিল না। সংসারে অভাব লেগেই ছিল। এরজন্য অনিমাদেবী পাড়ায় পাড়ায় বিস্কুট ফেরি করে সংসারের অভাব দূর করার চেষ্টা করতেন। অভাবের কারণে সাংসারিক গণ্ডগোল লেগেই থাকত। অভিযোগের পরই শনিবার ভোরে নবদ্বীপ থানার পুলিশ অভিযুক্ত রামানন্দ সাহাকে গ্রেফতার করে। উদ্ধার করে তার সঙ্গে থাকা ওই শিশুকন্যাকে। পুলিশি জেরায় খুনের কথা স্বীকার করেছে অভিযুক্ত রামানন্দ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here