রাজাপুর থানার ওসি’র বিরুদ্ধে উঠল বিজেপি কর্মীকে মারধরের অভিযোগ, চাঞ্চল্য উলুবেড়িয়ায়

0
226
kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, উলুবেড়িয়া: বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে এক বিজেপি কর্মীকে বেধড়ক মারধরের অভিযোগ উঠল হাওড়া জেলার উলুবেড়িয়া মহকুমার রাজাপুর থানার ওসি অজয় সিংয়ের বিরুদ্ধে। জানা গিয়েছে সুমন প্রামানিক নামের বছর ত্রিশের ওই যুবক রাজাপুর থানার খলিশানি রথতলা এলাকার বাসিন্দা।

ঘটনা প্রসঙ্গে সুমনের আইনজীবী সুকান্ত বোস জানান, রামনবমীর পরে রাম বিজয়ার দিন বিজেপির একটি মিছিলে ভিডিও তোলার কারণে রাজাপুর থানার পুলিশ তাকে বুধবার রাত ১১টা নাগাদ বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায়। সুমন এলাকার একজন সক্রিয় বিজেপি কর্মী। পরে রাজাপুর থানার ওসি থানার মধ্যেই সুমনকে বেধড়ক মারধর করে। মারধোরের ফলে সুমনের শরীরের ‌বিভিন্ন‌ অংশে কালসিটে পড়ে যায়। পরে বৃহস্পতিবার সুমনকে আদালতে তোলা হয়। আইনজীবি সুমন বোস জানান বৃহস্পতিবার উলুবেড়িয়া আদালতের বিচারক সুমনের শরীরে কালশিটে দাগ দেখে রাজাপুর থানার সিসিটিভি ফুটেজ জমা দেওয়ার পাশাপাশি উলুবেড়িয়ার এসডিপিওকে ঘটনার তদন্ত করে রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ দেন। সুকান্ত বোস জানান এদিন বিচারক উলুবেড়িয়া মহকুমা হাসপাতালের সুপারকেও একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করে সুমনকে পরীক্ষা করার পাশাপাশি সুমনের নিরাপত্তার স্বার্থে তাকে জেলা হেফাজতে রাখার পাশাপাশি জেল সুপারকেও একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করে তার চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে বলেন।

এই ঘটনার জেরে সংশ্লীষ্ট এলাকায় ব্যাপক ক্ষোভ তৈরি হয়েছে। বিজেপির হাওড়া গ্রামীণ জেলার সভাপতি অনুপম মল্লিক জানান, ‘পুলিশ যে কাউকে এমন নৃশংসভাবে মারতে পারে তা আমাদের কল্পনার মধ্যে ছিল না। সুপ্রীম কোর্টের যা নির্দেশ আছে তাতে কোন ক্রিমিনালকেও পর্যন্ত এইভাবে মারা যায় না। রাজাপুর থানার ওসি অজয় সিং একজন নির্দোষ ব্যক্তিকে শুধুমাত্র বিজেপি করার অপরাধে এইভাবে মেরেছে। পুলিশ চোরেদের সঙ্গে বসে চা খাচ্ছে রাটে বসে ফূর্তি করছে। এই যে অজয় সিং, ওখানে একজন মন্ত্রী আছে, সে তার পিএ। উনি থানার ওসি নন। মন্ত্রীর পিএ হিসাবেই যা করার তিনি করছেন। উনি ভাবছেন যে বিজেপিকে কেস দিলেই বিজেপির সব ঠান্ডা হয়ে যাবে। কিন্তু সেই ধারনা ভুল। আমাদের দাবি এখনই অজয় সিংকে সাসপেন্ড করতে হবে, তাকে বদলি করতে হবে। নাহলে আমরা ওই থানা অচল করে দেব।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here