bangla news

 

মহানগর ডেস্ক: মিলল না সুপারস্টার মিঠুন চক্রবর্তীর রোড শোয়ে অনুমতি৷ অগত্যা বেহালা ও পর্ণশ্রী থানা ঘেরাও করে এবং রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাল বিজেপি প্রার্থী শ্রাবন্তী চ্যাটার্জির নেতৃত্বে স্থানীয় নেতা-কর্মীরা৷ বিজেপির প্রার্থীর অভিযোগ, শেষ মুহূর্তে মিঠুনের রোড শোয়ে অনুমতি না দেওয়ায় স্থানীয় নেতা-কর্মী ও সমর্থকরা ভীষণ ক্ষুব্ধ হয়েছেন৷ তাই থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখানো ছাড়া বিকল্প নেই৷ প্রতিবাদের গণতান্ত্রিক পদ্ধতি মেনেই বিজেপি এটা করছে৷ শাসকদলের ওপর শ্রাবন্তী ক্ষোভ উগরে দিয়ে বলেন, ওরা ভয় পেয়ে গিয়েছে৷ তাই এভাবে আমাদেরকে আটকানোর চেষ্টা করছে৷ কিন্তু এভাবে বিজেপিকে আটকানো যাবে না৷ তিনি আরও বলেন, মিঠুনদাকে সঙ্গে নিয়ে ডোর-টু-ডোর প্রচারে বেরনোর কথা ছিল৷ এ জন্য পুলিশ-প্রশাসনের কাছে আগাম অনুমতি চেয়ে আবেদনও করা হয়৷ তারও অনুমতি দেওয়া হল না৷ এই প্রেক্ষিতে বেহালা ও পর্ণশ্রী এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়েছে৷ বেহালা পশ্চিম কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী শ্রাবন্তী এবং বেহালা পূর্ব কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী পায়েল সরকারের নেতৃত্বে গেরুয়া শিবিরের লোকজন বেহালা ও পর্ণশ্রী থানার সামনের রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন বলে জানা গিয়েছে৷

বিজেপি সূত্রে খবর, চতুর্থদফা ভোটের দুদিন আগে আজ বৃহস্পতিবার বেহালা পূর্ব ও পশ্চিম বিধানসভা কেন্দ্রে বিজেপির দুই অভিনেত্রী প্রার্থী পায়েল সরকার ও শ্রাবন্তীর হয়ে প্রচার করার কথা ছিল মিঠুনের৷ গতকাল দুপুর ১২টা নাগাদ এ জন্য অনুমতি চেয়ে নির্ধারিত অ্যাপে আবেদন করেছিল স্থানীয় বিজেপি কর্মকর্তারা৷ গতকাল রাত ৮টা নাগাদ পুলিশ জানায়, আবেদন মঞ্জুর করা সম্ভব নয়৷ এরপর বাধ্য হয়ে বিজেপির তরফে ডোর-টু-ডোর প্রচারের উদ্যোগ নেওয়া হয়৷ এই মর্মে পুনরায় আবেদন করা হয়৷ কিন্তু তাতেও সবুজ সংকেত দেয়নি পুলিশ৷ ফলে মিঠুন চক্রবর্তীকে নিয়ে প্রচারের যাবতীয় কর্মসূচি পণ্ড হয়ে যায়৷

এ প্রসঙ্গে বিজেপির রাজ্য নেতা সায়ন্তন বসু প্রশাসন ও তৃণমূল কংগ্রেসকে কাঠগড়ায় তুলে তোপ দাগেন৷ তিনি বলেন, এটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক৷ রাজ্য প্রশাসন এখনও তৃণমূলের নিয়ন্ত্রণ ও প্রভাব থেকে মুক্ত হতে পারল না৷ প্রশাসনের এহেন পক্ষপাতমূলক ও একপেশে আচরণকে আমরা ধিক্কার জানাই৷ বিজেপি প্রার্থীদের কোথাও প্রচার করতে দেওয়া হচ্ছে না৷ সব জায়গায় নানান অজুহাতে প্রচারে বাধা দেওয়ার চেষ্টা হচ্ছে৷ এভাবে গণতন্ত্রের কণ্ঠরোধের চেষ্টার পরিণতি মারাত্মক ভয়াবহ হতে পারে৷ এদিকে মিঠুন বলেছেন, প্রশাসনিক অনুমতি না পাওয়া গেলে তিনি প্রচার করবেন না৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here