বিজেপির কর্মীদের উপর পুলিশের লাঠিচার্জের অভিযোগ, উত্তপ্ত হুগলির গোঘাট

0
51

নিজস্ব প্রতিবেদক, হুগলি: বিজেপির থানা ঘেরাও কর্মসূচি এবং পুলিশের বিরুদ্ধে লাঠিচার্জের অভিযোগের ঘটনায় শনিবারও থমথমে হুগলির গোঘাট এলাকা। যদিও নতুন করে কোনও গণ্ডগোল হয়নি। তবে পুলিশের বিরুদ্ধে তীব্র উষ্মা প্রকাশ করেছেন বিজেপির আরামবাগ জেলা সাংগঠনিক সাধারণ সম্পাদক সুমন তেওয়াড়ি।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, শুক্রবার বিকালে গোঘাট থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন বিজেপি কর্মী-সমর্থরা।
গোঘাটের নকুন্ডার কোটা গ্রামের বিজেপি নেতা কাশীনাথ ঘোষের খুনের ঘটনায় অভিযুক্তদের এখনও গ্রেফতার না করার প্রতিবাদেই থানার সামনে বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন তাঁরা। বিক্ষোভ কর্মসূচী শেষ হয়ে যাওয়ার পর থানার পাশে বকুলতলা এলাকায় জমায়েত হন বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা। সেখানে বেশ কিছু বিজেপি কর্মী পুলিশের গাড়ি আটকায় বলে অভিযোগ। পুলিশকর্মীরা বাধা দিতে গেলে তাঁদের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন বিজেপি কর্মীরা। তখনই গোঘাট থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী ঘটনাস্থলে গিয়ে বিজেপি কর্মীদের তাড়া করে এবং লাঠিচার্জ করে বলে অভিযোগ।

স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্বের অভিযোগ, পুলিশের লাঠির ঘায়ে দাউদ আলি নামে এক বিজেপি কর্মী আহত হয়েছেন। পুলিশ তাঁকে আটকও করে। পুলিশের এই ভূমিকার তীব্র নিন্দা করেন বিজেপির আরামবাগের জেলা সাংগঠনিক সাধারণ সম্পাদক সুমন তেওয়ারি। বিজেপি কর্মীদের পুলিশের গাড়ি ঘেরাও করার অভিযোগ অস্বীকার করে তিনি বলেন, ‘আমরা আইন-শৃঙ্খলা বজায় রেখেই বিক্ষোভ কর্মসূচি শেষ করি। তারপর বাড়ি যাওয়ার জন্য আমাদের কর্মীরা থানার পাশেই বকুলতলা এলাকায় জড়ো হয়। তখন পুলিশ তাদের সেখান থেকে তাড়িয়ে দিতে গেলে বচসা বাধে। এরপরই পুলিশকর্মীরা আমাদের কর্মীদের লাঠি চার্জ করে। এমনকি একজন কর্মীকে বেধরক মারধর করে আটকও করে। এটি তীব্র নিন্দনীয় ঘটনা।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here