নিজস্ব প্রতিবেদক, বনগাঁ: গোপন সুত্রে খবর পেয়ে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বনগাঁ মহকুমার বাগদা থানার ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে বাইক পাচার চক্রের সন্ধান পেওল পুলিশ। ভোটের মুখে এই ঘটনা জেলা পুলিশের বেশ বড়সড় সাফল্য বলেই মনে করা হচ্ছে। ঘটনায় পুলিশের হাতে ৮টি চোরাই বাইক যেমন আটক হয়েছে তেমনি এই বাইক পাচারচক্রে জড়িত থাকার জেরে দুই যুবকেও গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে মঙ্গলবার রাতে বিশ্বস্ত সূত্রে খবর পেয়ে বনগাঁ থানার পুলিশ হানা দেয় বাগদা থানা এলাকায়। সেখান থেকেই বাইক চুরির অপরাধে প্রথমে গ্রেফতার করা হয় বিশ্বজিৎ বিশ্বাস নামে এক যুবককে। তাকে জেরা করতেই বার হয় দিলওয়ার মন্ডলের নাম।

প্রসঙ্গত কয়েকদিন ধরেই বনগাঁ মহকুমা জুড়ে বাড়ছিল বাইক চুরির ঘটনা। বিশেষ করে বনগাঁ শহরে তা খুবই বাড়াবাড়ির পর্যায়ে পৌঁছেছিল। সম্প্রতি বনগাঁ কুমুদিনী স্কুলের উল্টো দিকের একটি মার্কেটের ভেতর থেকে দিনের বেলায় চুরি যায় একটি বাইক, কয়েকদিন আগে পৌর ভবনের নিচ থেকেও এক পৌর কর্মীর বাইক চুরি যায় বলে অভিযোগ ওঠে। পুলিশ ওই ঘটনার তদন্তে নেমে দুটির ক্ষেত্রেই সিসিটিভি ফুটেজের সন্ধান পায়। গোটা চুরির ঘটনা সিসিটিভিতে বন্দি থাকায় পুলিশের সুবিধা হয়। তারা ওই সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখে অপরাধীদের সন্ধান পায়।

 

বিশ্বজিৎ বিশ্বাসকে গ্রেফতারির পরেই তাকে জেরা শুরু করে পুলিশ। তখনই তারা দিলওয়ার মন্ডলের নাম জানতে পারে। এরপরই বনগাঁ শহর থেকেই গ্রেফতার করা হয় দিলওয়ারকে। তাকে জেরা করেই পুলিশ চুরি যাওয়া ৮টি বাইকের সন্ধান পায়। ধৃতদের এদিন আদালতে হাজির করানোর পর পুলিশের পক্ষ থেকে ১২ দিনের পুলিশি হেফাজতের আবেদন জানানো হয় আদালতের কাছে। চোরাই বাইক গুলি কোথায় নিয়ে যাওয়া হতো বা এর পেছনে আর কে কে যুক্ত তা খতিয়ে দেখতে ঘটনার তদন্ত চালাচ্ছে পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here