নিজস্ব প্রতিনিধি : ট্যাংরায় তারক সিং খুনে পুলিশের জালে দুই অভিযুক্ত। অন্ধ্রপ্রদেশ ও তেলেঙ্গানায তল্লাশি অভিযান চালিয়ে মিলন জানা ও বিশ্বজিত দাস নামে দুই কুখ্যাত দুষ্কৃতীকে গ্রেফতার করল কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ। দুজনকেই শিয়ালদহ আদালতে তোলা হয়।

গত বছর ৩১ ডিসেম্বর ট্যংরা থানা এলাকার পাগলাডাঙ্গা এলাকার বাসিন্দা তারক মণ্ডলকে ধারাল অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে খুন করে একদল দুষ্কৃতী। প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, একটি দোকানের বাইরে বসেছিলেন তারক, সেই সময় ৬-৭ জন দুষ্কৃতীদের একটি দল আচমকা চড়াও হয় তারকের ওপর। আত্মরক্ষার জন্য পালানোর চেষ্টা করেছিলেন তারক। তাঁকে ধাওয়া করে একটি ফাঁকা জায়গায় নিয়ে গিয়ে ধারাল অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে করেন দুষ্কৃতীরা। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তারকের। খুনের মামলা রুজু করে ঘটনার তদন্ত শুরু করে ট্যাংরা থানার পুলিশ। যদিও দুষ্কৃতীদের নাগাল পাওয়া যায়নি এতদিন। ব্যাক্তিগত শত্রুতার জেরেই এই খুন বলে প্রাথমিক তদন্তে জানতে পারেন তদন্তকারীরা। এরপর তদন্তভার হাতে নেয় কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ।

 

৩ মাস অপেক্ষার পর অবশেষে মিলন জানা নামে এক দুষ্কৃতী অন্ধ্রপ্রদেশে আত্মগোপন করে আছে বলে জানতে পারেন গোয়েন্দারা। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে, গত ১৪ মার্চ অন্ধ্রপ্রদেশের উদ্দেশ্যে রওনা দেন গোয়েন্দা বিভাগের গুণ্ডা দমন শাখা। এরপর অভিযুক্তের অবস্থান সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়ার পরেই স্থানীয় পেডাকাকান থানার পুলিশের সাহায্যে ওল্ড গুন্তুর এলাকা থেকে হাতেনাতে মিলনকে গ্রেফতার করেন গোয়েন্দারা। তাঁর নামে আগেই গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছিল শিয়ালদহ আদালত।

ট্রানজিট রিম্যান্ডে কলকাতায় নিয়ে এসে তাঁকে দফায় দফায় জেরা শুরু করেন গোয়েন্দারা। লাগাতার জেরার মুখে ভেঙে পড়ে তারক মণ্ডল খুনের ঘটনায় যুক্ত অপর দুষ্কৃতী বিশ্বজিতের খোঁজ পায় পুলিশ। এরপরই ফের তেলেঙ্গানার সেকেন্দ্রাবাদের উদ্দেশ্যে রওনা দেন গুণ্ডা দমন শাখার আধিকারিকরা। স্থানীয় পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে সন্তোষনগর থানা এলাকা থেকে বিশ্বজিত দাসকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ধৃত মিলন জানা ও বিশ্বজিত দাস দুজনেই কলকাতার হাটগাছিয়া রোড এলাকার বাসিন্দা বলে জানা গিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here