kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: ভোটের ফলাফল প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই রাজনৈতিক হিংসায় উত্তপ্ত ভাঙড়। কোথাও মারধর, বোমাবাজি এমনকী বাড়িত, দোকানে আগুন লাগানোর অভিযোগ উঠতে শুরু করে। এবার সেই হিংসার ঘটনা আটকাতে শুক্রবার সকাল থেকেই জায়গায় জায়গায় অভিযান চালাল ভাঙড়ের কাশীপুর থানার পুলিশ। শান্তি বজায় রাখতে মাইকিং করেও প্রচার চালায় পুলিশ। রাজনৈতিক হিংসা ছড়ানোর অভিযোগে বেশ কয়েকজনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

জানা গিয়েছে, ভোটের পর থেকেই নিমকুড়ি এবং জয়পুর গ্রামে রাজনৈতিক হিংসা শুরু হয়েছিল। আক্রান্ত হয়েছিলেন বেশ কিছু মানুষ। ভয়ে ঘরছাড়াও হয়েছেন অনেকে। এলাকায় আতঙ্ক দূর করতে ও শান্তির পরিবেশ বজায় রাখতে শুক্রবার সকাল থেকেই কাশীপুর থানার ওসি সমরেশ ঘোষের নেতৃত্বে বিশাল পুলিশ বাহিনী অভিযানে নেমে পড়ে। মাইকিং করে শান্তি বজায় রাখার জন্য চলতে থাকে প্রচার। জয়পুর, নিমকুড়ি, ভগবানপুর, চালতাবেড়িয়া-সহ ভাঙড়ের বিভিন্ন গ্রামে আড্ডার ঠেক ও মাচা ভেঙে গুড়িয়ে দেয় পুলিশ। হিংসার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ১০ জনকে আটক করেছে পুলিশ। আপাতত এলাকায় এলাকায় ঘুরে শান্তি রক্ষার বার্তা দিচ্ছে ভাঙড়ের কাশীপুর থানার পুলিশ।

অন্যদিকে, গতকাল ভাঙড়ের হিংসা বিধ্বস্ত এলাকা পরিদর্শন করলেন ভাঙড়ের পরাজিত তৃণমূল প্রার্থী ডাঃ রেজাউল করিম। সারা রাজ‍্য জুড়ে সবুজের ঝড় উঠলেও ভাঙড়ের তৃণমূল প্রার্থীকে হারিয়ে জয়লাভ করেন আইএসএফ প্রার্থী নওসাদ সিদ্দিকী। তারপর থেকে ভাঙড় জুড়ে বিভিন্ন যায়গায় অশান্তি দানা বাধে। কোথাও তৃণমূল কর্মীদের মারধর, বাড়িতে হামলা, এমনকী লুটপাট চালানোর অভিযোগ উঠেছে আইএসএফ কর্মীদের বিরুদ্ধে। আবার আইএসএফ সমর্থকরাও আক্রান্ত হচ্ছেন বলে দাবি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here