ছাত্রনেতাকে হাতকড়া পরিয়ে ট্রেনে তুলল পুলিশ, উঠল মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ

0
135

নিজস্ব প্রতিবেদক, চন্দননগর: ছাত্রনেতাকে হাতকড়া পরিয়ে লোকাল ট্রেনে করে নিয়ে গেল পুলিশ। শুনতে আশ্চর্য লাগলেও শুক্রবার সকালে এমনটাই ঘটেছে তারকেশ্বর থেকে চন্দননগরগামী লোকাল ট্রেনে। হুগলি পুলিশের ছাত্রনেতাকে হাতকড়া পরিয়ে নিয়ে যাওয়ার ঘটনাটি সোশ্যাল মিডিয়াতেও ভাইরাল হয়েছে। এরপরই এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে নিয়ে নিন্দার ঝড় উঠেছে। হুগলি পুলিশের বিরুদ্ধে মানবাধিকার ভঙ্গের অভিযোগ তুলেছে বিজেপি।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, হাতকড়া পরিয়ে নিয়ে যাওয়া ওই ছাত্রনেতার নাম সায়নদীপ সামন্ত। তারকেশ্বরের আস্তারা গ্ৰামের বাসিন্দা সায়নদীপ এবিভিপির সমর্থক। বছর পাঁচেক আগে ঘটা ছাত্র সংঘর্ষের এক মামলার শুনানিতে নিয়ে যাওয়ার জন্যই এদিন সকালে তারকেশ্বর থানার পুলিশ সায়নদীপকে হাতকড়া পড়িয়ে লোকাল ট্রেনে করে চন্দননগর আদালতে নিয়ে যায়। প্রকাশ্যে এভাবে ছাত্রনেতাকে ট্রেনে করে হাতকড়া পড়িয়ে নিয়ে যেতে দেখে হতবাক হয়ে যায় সমস্ত যাত্রীরা। কৌতূহলবশত তারাই ছাত্রনেতাকে হাতকড়া পরিয়ে ট্রেনে করে নিয়ে যাওয়ার ঘটনাটি মোবাইলে ভিডিয়ো করে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে। তারপর ভিডিয়োটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তে বেশি সময় নেয়নি। এরপরই পুলিশের বিরুদ্ধে নিন্দার ঝড় ওঠে সর্বত্র। আদালত কাউকে দোষী সাবস্ত না করা পর্যন্ত কাউকেই প্রকাশ্যে হাতকড়া পড়িয়ে নিয়ে যাওয়া যায় না বলে জানিয়েছেন আইনজীবি অশোক কুমার দাস। বিজেপির তরফেও এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। পুলিশ মানবাধিকার লঙ্খন করেছে অভিযোগ তুলে আরামবাগ সাংগঠনিক জেলা সভাপতি গনেশ চক্রবর্তী বলেন, ‘সায়নদীপ সামন্ত ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের ছাত্র। একজন শিক্ষিত ছেলেকে যেভাবে প্রকাশ্যে হাতকড়া পড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে, তাতে তাঁর সম্মানহানি হয়েছে। মানবাধিকার লঙ্খন করেছে পুলিশ। এই ঘটনা খুবই নিন্দনীয় ব‍্যাপার। আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।’ হুগলি পুলিশ অবশ্য বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালে চাঁপাডাঙ্গা কলেজে তৃণমুল ও অখিল ভারতী বিদ্যার্থী পরিষদের মধ‍্যে ছাত্র সংঘর্ষের ঘটনার অন্যতম সাক্ষী হিসাবে পুলিশের খাতায় নাম ছিল সায়নদীপ সামন্তের। মামলাটির শুনানিতে সাক্ষ্য দেওয়ার জন্য বেশ কয়েকবার তাঁকে সমন পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু সায়ন্তন আদালতে হাজিরা না দেওয়ায় তাঁর বিরুদ্ধে গ্ৰেফতারি পরোয়ানা জারি হয়। তার ভিত্তিতেই বৃহস্পতিবার রাতে তারকেশ্বর থানার পুলিশ সায়নদীপকে গ্রেফতার করে এবং এদিন সকালে চন্দননগর আদালতে শুনানিতে হাজিরা দেওয়ানোর জন্যই হাতকড়া পরিয়ে তাঁকে ট্রেনে করে নিয়ে যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here