kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাঁকুড়া: বেসরকারি নামী ইংরাজী মাধ্যম স্কুলে ছাত্র মৃত্যুর ঘটনায় উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য। ফুসফুসে আঘাতের কারনে নয় মাথায় আঘাতেই মৃত্যু হয়েছে ছোট্ট রূপমের। ময়নাতদন্তের রিপোর্টে ক্লাস থ্রির পড়ুয়া রূপম পালের মৃত্যুর জন্য দায়ী করা হয়েছে মাথায় আঘাতকে। রূপম পালের মৃত্যুর পর থেকেই তার পরিবার দাবি করে আসছিলেন ঘটনার পুর্নাঙ্গ তদন্তের। সোমবার বাঁকুড়ার জেলা শাসকের দফতরে আয়োজিত গন অভিযোগ কেন্দ্রে হাজির হয়ে ফের সেই দাবি আবার তুললেন মৃত ছাত্র রূপমের পরিবার।

গত ২৩ জুলাই অন্যান্য দিনের মতোই বাঁকুড়ার বিবেকানন্দ শিক্ষা নিকেতন হাইস্কুলে এসেছিল তৃতীয় শ্রেনীর ছাত্র রূপম পাল। টিফিনের পর আচমকাই অসুস্থ হয়ে পড়ে রূপম। ওইদিন স্কুলের পক্ষ থেকে অসুস্থ রূপমকে ভর্তি করা হয় বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। প্রায় দশ দিন ধরে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে অবশেষে চিকিৎসাধীন অবস্থাতেই ১লা আগষ্ট হার মানে ছোট্ট রূপম। ওই দিনই রূপমের মৃত্যুর জন্য স্কুলের দুই শিক্ষক ও এক ছাত্রের বিরুদ্ধে বাঁকুড়া সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে রূপমের পরিবার। ওই অভিযোগে রূপমের পরিবার দাবি করে স্কুলের টিফিনের সময় রূপমের সঙ্গে এক সহপাঠীর মারমারির কারনে অসুস্থ হয়ে পড়ে রূপম। পরে ক্লাসে অমনোযোগী হওয়ার কারনে এক শিক্ষিকা ক্লাসে রূপমের মাথা বেঞ্চের সঙ্গে সজোরে ঠুকে দেন। রূপমের মৃত্যুর জন্য দায়ী করা হয় স্কুলের গাফিলাতিকেও।

কিন্তু প্রথম থেকেই স্কুলের গাফিলাতি ও রূপমের মৃত্যুর দায় অস্বিকার করে আসছিল স্কুল কর্তৃপক্ষ। সম্প্রতি রূপমের ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে আসে পরিবারের। ওই রিপোর্টে স্পষ্ট ভাবে উল্লেখ করা হয় রূপমের মৃত্যুর জন্য দায়ী তার মাথার আঘাত। রূপমের পরিবারের দাবি স্কুলে আসার পরই রূপমের মাথায় আঘাত লেগেছিল। ওই আঘাত কি ভাবে লেগেছিল এবং ওই আঘাতের পিছনে ঠিক কার কি ভুমিকা ছিল তা খতিয়ে দেখা হোক। গোটা ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্তের পাশাপাশি অভিযুক্তদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবিতেও সরব হয়েছে রূপমের পরিবার। জেলা প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে পুলিশের পাশাপাশি গোটা ঘটনায় স্কুলের ভুমিকা খতিয়ে দেখতে ইতিমধ্যেই বাঁকুড়া সদর মহকুমা শাসকের নেতৃত্বে চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে জেলা প্রশাসন। তারা সব বিষয়টি খতিয়ে দেখে জেলা শাসকের কাছে রিপোর্ট দেবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here