kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: আগেরবার দলে যোগ দিয়েই তৃণমূলের টিকিট পেয়েছিলেন। খুব সহজেই তিনি জিতেছিলেন উত্তরপাড়া বিধানসভা আসন থেকে। তারপর প্রথমদিকে দলের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক খুব একটা খারাপ হয়েছে বলে শোনা যায়নি। কিন্তু শেষের দিকে এসে দলের সঙ্গে তার সম্পর্ক একেবারে বিষিয়ে যায়। দলবিরোধী নানান কথাবার্তা বলতে শোনা যায় তাকে। অবশেষে তৃণমূল ছেড়ে তিনি যোগ দেন বিজেপিতে। সেই বিজেপি তাকে এবার উত্তরপাড়াতেই টিকিট দিয়েছিল তৃণমূলের বিরুদ্ধে লড়ার জন্য। তৃণমূলের নবাগত তারকা প্রার্থী কাঞ্চন মল্লিকের কাছে শোচনীয় পরাজয় হয়েছে প্রবীর ঘোষালের। তবে এমন পরাজয় শুধু তাঁর একার হয়নি। তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যাওয়া বহু প্রার্থী জিততে পারেননি। তৃণমূলের কাছে হারার পর এবার অন্য সুর শোনা গেল প্রবীর ঘোষালের গলায়। তিনি বলেছেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের যে উন্নয়নের কর্মসূচি মানুষদের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়েছিল এবং ২০১৯-এর লোকসভা ভোটের বিপর্যয়ের পর অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় সেই কাজটি নিজের হাতে দায়িত্ব নিয়ে পালন করেছেন। তাই এবার এমন ফল পেয়েছে তৃণমূল।

​আজ হঠাৎ এমন কথা কেন বললেন বিজেপির পরাজিত প্রার্থী প্রবীর ঘোষাল? ইতিমধ্যে চর্চা শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে। তার এই বক্তব্য তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে। কারণ ফলপ্রকাশের পরদিন সকালে দলবদলুদের সম্পর্কে নরম কথা বলতে শোনা যায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। যারা দল ছেড়ে গিয়েছেন, তাদের কি আবার দলে ফিরিয়ে নেওয়া হবে? এই প্রশ্নে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, ‘আসুক না। কে বারণ করছে। এলে স্বাগত’। তৃণমূল নেত্রীর এই মন্তব্য সামনে আসার পর প্রবীর ঘোষালের মুখ থেকে শোনা গেল সেই তৃণমূল নেত্রী এবং দলের যুব সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্তুতি। তাই রাজনৈতিক মহলের একাংশ মনে করছে, এখন এই কথা বলে বোধহয় তিনি তৃণমূলের ফেরার রাস্তা তৈরি করছেন।

​তিনি যে দলের টিকিটে ভোটে লড়েছিলেন, সেই বিজেপির এত শোচনীয় পরাজয় সম্পর্কে প্রবীর ঘোষাল বলেছেন, ‘একটা দুর্বলতা তো ছিলই’ বুথের ভোটার স্লিপ পর্যন্ত প্রত্যেক মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া যায়নি। সেটা করতে পারেনি বিজেপি কর্মীরা। প্রচারে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আবেদনকে বাংলা মানুষ বেশি গ্রহণ করেছিল বলে এই ফল। এখন অস্বীকার করে কোনও লাভ নেই প্রধানমন্ত্রী, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী-সহ পুরো কেন্দ্রীয় বিজেপি নেতৃত্ব ঝাঁপিয়েছিল। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই মানুষ গ্রহণ করেছে। সেই কারণে এই ফল।

​আজ প্রবীর ঘোষালের মুখ থেকে এই কথা শোনার পর চর্চা শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে। এতদিন যাদের সমালোচনা করেছেন, আজ তাদের প্রশংসা শোনা গেল তাঁর মুখে। তাই রাজনৈতিক মহল বলতে শুরু করেছে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, তৃণমূল যুব সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় সম্পর্কে এমন কথা বলে তৃণমূলে ফেরার রাস্তা পরিষ্কার করছেন প্রবীর ঘোষাল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here