kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচারের পর শরীরে করোনার অস্তিত্ব ধরা পড়েছিল দেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের। এরপর গত ১০ আগস্ট থেকে দিল্লির সেনা হাসপাতালেই ভর্তি রয়েছেন প্রণব মুখোপাধ্যায়। প্রতিদিন নিয়ম করে তার শারীরিক অবস্থার কথা দেশবাসীরকে জানাচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। শনিবার সেনা হাসপাতালের তরফে জানিয়ে দেওয়া হল দেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব ভেন্টিলেটর সাপোর্টে হাসপাতলে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় রয়েছেন প্রণব, বাড়ছে উদ্বেগ

মহানগর ওয়েবডেস্ক: মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচারের পর শরীরে করোনার অস্তিত্ব ধরা পড়েছিল দেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের। এরপর গত ১০ আগস্ট থেকে দিল্লির সেনা হাসপাতালেই ভর্তি রয়েছেন প্রণব মুখোপাধ্যায়। প্রতিদিন নিয়ম করে তার শারীরিক অবস্থার কথা দেশবাসীরকে জানাচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। শনিবার সেনা হাসপাতালের তরফে জানিয়ে দেওয়া হল দেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের শারীরিক অবস্থার কোনও পরিবর্তন হয়নি। এখনও ভেন্টিলেশন সাপোর্টেই রয়েছেন তিনি।

শনিবার দিল্লির সেনা হাসপাতালের তরফে হেলথ বুলেটিন প্রকাশ করে জানানো হয়, আজ সকালেও প্রণব বাবুর শারীরিক অবস্থার কোনও পরিবর্তন হয়নি। উনি পুরোপুরি অচৈতন্য অবস্থায় রয়েছেন। সম্প্রতি তার ফুসফুসে সংক্রমণ ধরা পড়েছে। বর্তমানে তার চিকিৎসা চলছে। পাশাপাশি তার সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ ঠিকঠাক কাজ করছে। এবং প্রণব মুখোপাধ্যায়ের চিকিৎসার জন্য যে বিশেষজ্ঞ দল তৈরি করা হয়েছে তারা সর্বক্ষণ তার স্বাস্থ্যের দিকে নজর রেখেছেন। যদিও তার শরীরে যে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব ধরা পড়েছিল তা কি অবস্থায় রয়েছে। তার কোনও তথ্য পাওয়া যায়নি হাসপাতাল সূত্রে।

উল্লেখ্য, মস্তিষ্কে রক্ত জমাট বাঁধার কারণে অস্ত্রোপচার করতে গত ১০ অগাস্ট প্রণব মুখোপাধ্যায়কে আর্মি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। অস্ত্রোপচারের পর শারীরিক পরিস্থিতির অবনতি ঘটে তাঁর। প্রথমে তিনি কোভিড পজিটিভ ধরা পড়েন, এরপর কোমায় চলে যান। তারপর থেকেই প্রণবের শারীরিক সুস্থতার জন্য প্রার্থনা করছে গোটা দেশ। ছেলে অভিজিৎ মুখোপাধ্যায় অবশ্য জানিয়েছেন, খুব ধীরগতিতে হলেও ক্রমশ শারীরিক অবস্থার উন্নতি হচ্ছে প্রণবের। ৮৪ বছর বয়সী ভারতীয় রাজনীতির অন্যতম স্তম্ভ বর্তমানে ভেন্টিলেটর সাপোর্টে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন হাসপাতলে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here