kolkata news

Highlights

  • তৃণমূল কাউন্সিলরদের কড়া নির্দেশিকা দিয়েছেন প্রশান্ত কিশোর
  • পুরসভা ভোটের লড়াইয়ে যাতে কোনওভাবেই ২০১৮-র পঞ্চায়েত নির্বাচনে মতো পরিস্থিতি তৈরি না হয়
  • তৃণমূল বিধায়ক- কাউন্সিলরদের সতর্কবার্তা পিকের

মহানগর ওয়েবডেস্কঃ ২০১৯ লোকসভায় বাংলায় বিজেপির বাড়বাড়ন্ত হয়েছে ব্যাপকভাবে। গেরুয়া শিবিরকে ঠেকাতে তখন থেকেই উঠেপড়ে লেগেছে তৃণমূল। দলকে আরও সঠিক দিশা দেখাতে ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোরকে নিয়োগ করে দল। ২০২০-তে রাজ্যজুড়ে বিভিন্ন পুরসভায় নির্বাচন রয়েছে। আর এই নির্বাচনকেই ২০২১-এর আগে সেমিফাইনালের লড়াই বলেই ধরে নিচ্ছে ঘাসফুল শিবির। সেই অনুযায়ী তৃণমূল কাউন্সিলরদের সামনে কড়া নির্দেশিকা রেখেছেন পিকে স্বয়ং।

সূত্রের খবর, পুরসভা ভোটের লড়াইয়ে যাতে কোনওভাবেই ২০১৮-র পঞ্চায়েত নির্বাচনে মতো পরিস্থিতি তৈরি না হয়, সেই ব্যাপারে তৃণমূল কাউন্সিলরদের সতর্ক করেছেন নির্বাচনী স্ট্র্যাটেজিস্ট প্রশান্ত কিশোর। প্রসঙ্গত, রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, উনিশের লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের আশানুরূপ ফল না হওয়া ও বিজেপির বাড়বাড়ন্ত হওয়ার নেপথ্যে অনেকটাই দায়ী ২০১৮ সালের পঞ্চায়েত নির্বাচন। জোর করে মানুষকে তৃণমূলে ভোট দিতে বাধ্য করা, কোথাও কোথাও ভোট না দিতে দেওয়ার মতো অভিযোগ উঠেছিল ঘাসফুল শিবিরের কর্মীদের বিরুদ্ধে। তবে পুরসভার ভোটে যাতে এর কোনওটাই না হয় তা নিয়ে তৃণমূল কাউন্সিলরদের ইতিমধ্যেই সতর্ক করে দিয়েছেন প্রশান্ত কিশোর।

পুরসভা ভোটের আর মাত্র তিনমাস বাকী। এখনও নির্বাচনী নির্ঘন্ট ঘোষণা না হলেও ধরে নেওয়া হচ্ছে এপ্রিলেই হবে ভোট। সেই নির্বাচনকে ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনের আগে সেমিফাইনালের লড়াই বলে ধরে নিচ্ছেন রাজনীতিবিদরা। বিধানসভার আগে কোন দলের কতটা প্রস্তুতি রয়েছে তা বোঝা যাবে এই লড়াই থেকেই। তবে তৃণমূল স্বীকার না করলেও পঞ্চায়েত নির্বাচনে রীতিমত হিংসার সাক্ষী হতে হয়েছে বাংলাকে। যার জেরে অনেকেই মুখ ঘুরিয়েছিল তৃণমূল থেকে। এবার যাতে নির্বাচনকে ঘিরে কোনওভাবেই সেরকম কোনও হিংসার ঘটনা না ঘটে তা নিয়ে কাউন্সিলরদের সতর্ক করেছেন পিকে।

এদিকে উঠে আসছে আরও একটি বিষয়। ইতিমধ্যেই বিজেপির তরফ থেকে দাবি করা হয়েছে, সুষ্ঠু নির্বাচন করাতে হলে পুর নির্বাচন কেন্দ্রীয় বাহিনীকে দিয়ে করাতে হবে। সাধারণত পুরসভা নির্বাচনে রাজ্য পুলিশ মোতায়েন থাকে। তবে গেরুয়া শিবিরের দাবি, নির্বাচন শান্তিতে করাতে গেলে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা প্রয়োজন। রাজ্য পুলিশ থাকলে তার অন্যভাবে সুযোগ নেবে তৃণমূল।

জানা গিয়েছে, প্রশান্ত কিশোর নির্দেশ দেওয়ার পর একরকম ভয়ে ভয়েই রয়েছেন তৃণমূল বিধায়ক থেকে কাউন্সিলর সবাই। একদিকে নিজেদের ঘর বাঁচানোর চেষ্টা অন্যদিকে পিকের কড়া বার্তা দুই সামলে এই সেমিফাইনাল ভালোভাবে উতরে দেওয়াটা রীতিমত চ্যালে়ঞ্জ তৃণমূল কাউন্সিলর-বিধায়কদের কাছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here