মহানগর ডেস্ক: ২০১৭ তে ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোরের হাত ধরে বিপুল ভোটে জিতে ক্ষমতায় এসেছিলেন পাঞ্জাবের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং। আগামী ২০২২ এর বিধানসভা নির্বাচনে সেই প্রশান্ত কিশোরের কৌশলকে কাজে লাগিয়েই বাজিমাত করতে চাইছেন ক্যাপ্টেন অমরিন্দর। তাই ফের প্রশান্ত কিশোরের ওপর ভরসা করেই এদিন তাঁকে দ্বিতীয় বারের জন্য নিজের মুখ্য উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ করলেন কংগ্রেসের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর।

এদিন পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং লেখেন, ‘ আমার মুখ্য উপদেষ্টা হিসেবে কগ দিয়েছেন প্রশান্ত কিশোর। পাঞ্জাবের মানুষের উন্নয়নের স্বার্থে একসঙ্গে কাজ করার জন্য মুখিয়ে রয়েছি।’ কৃষক আন্দোলনের আবহে কিছুদিন আগেই পাঞ্জাবের পুরসভা নির্বাচনে বিজেপি ভরাডুবির মুখে পড়লেও, বিপুল ভোটে জয়লাভ করেছে কংগ্রেস। রাজনৈতিক মহলের ধারণা, প্রশান্ত কিশোরের কৌশলকে কাজে লাগিয়ে নিজেদের পায়ের তলার জমি আরও শক্ত করতে চাইছে কংগ্রেস।

এদিকে বাংলা সহ পাঁচ রাজ্যের নির্বাচনী নির্ঘন্ট প্রকাশ হয়েছে ইতিমধ্যেই। তৃণমূলের ভোট কুশলী হিসাবে রীতিমতো চ্যালেঞ্জের মুখে প্রশান্ত কিশোর। দুশোর বেশি আসনে মমতা কে জেতানোর যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন কিশোর, তা ভোটের ফলাফলের দিনই জানা যাবে। গত ২১শে ডিসেম্বর তিনি টুইটারে লিখেছিলেন, ‘আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি আসন সংখ্যায় দুই অনেক পেরিয়ে তিন অঙ্কের ঘরে যাবেনা। এরপরেই কিশোর বিজেপি কার্যত চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে বলেছিলেন, ‘বিজেপি এর থেকে ভালো ফল করলে আমি এই কাজ ছেড়ে দেব।’ সূত্রের খবর, তৃণমূলের দুয়ারে সরকার, স্বাস্থ্য সাথী থেকে শুরু করে ‘বাংলা নিজের মেয়েকেই চাই’ প্রশান্ত কিশোরেরই মস্তিষ্ক প্রসূত।

তবে ভোটকুশলী হিসেবে বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন প্রশান্ত কিশোর। দিল্লিতে অরবিন্দ কেজরিওয়াল, অন্ধ্রপ্রদেশে জগমোহন রেড্ডি, বিহারে ২০১৫ তে নীতিশ কুমারকে ভোটে জিতিয়ে নিজের বিশ্বাসযোগ্যতার প্রমান দিয়েছেন প্রশান্ত। ২০১৮তে তাঁকে জনতা দলে জায়গা দেন নীতিশ কুমার। কিন্তু এনআরসি, সিএএ প্রসঙ্গে বিজেপির বিরোধিতায় সুর চড়ালে তাঁকে দল থেকে বহিস্কার করেন নীতিশ। তখন থেকেই বিজেপির বিরুদ্ধে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করেন প্রশান্ত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here