নিজস্ব প্রতিবেদক, মুর্শিদাবাদ: নিজের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী’কে মারধর করে পরপুরুষের হাতে তুলে দেওয়ার অভিযোগ উঠল স্বামীর বিরুদ্ধে। বেগতিক বুঝে মারুতি ভ্যান থেকে লাফ দিলেন গৃহবধূর। ঘটনা হরিহরপাড়া থানার রাজনগর গ্রামের। যা নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে৷

উল্লেখ্য, বছর সাতেক আগে নদীয়ার জমসেরপুরের বাসিন্দা সুলেখা বিবির সঙ্গে বিয়ে হয় হরিহরপাড়া থানার রাজনগর গ্রামের বাসিন্দা মাহাতাব সেখের। অভিযোগ, বিয়ের পর থেকেই পণের দাবিতে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালাতো স্বামী-সহ শ্বশুরবাড়ির অন্যান্য সদস্যরা। শুক্রবার সন্ধ্যায় সুলেখাকে মারধর করে একটি কাগজে সই করিয়ে নেয় তাঁর স্বামী। মনে করা হচ্ছে সেটি ছিল ডিভোর্স পেপার৷ এরপর তাঁকে দুই অপরিচিত ব্যক্তির মারুতি ভ্যানে তুলে দেয় মাহাতাব। মারুতি ভ্যানটি অন্যপথে ধরায় সুলেখার সন্দেহ হয়, এবং সে পিপড়াখালি এলাকায় মারুতি ভ্যান থেকে ঝাঁপ দেয়।

জখম অবস্থায় স্থানীয় বাসিন্দারা উদ্ধার করে তাঁকে হরিহরপাড়া ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যায়। তিন মাসের অন্তঃ স্বত্তা সুলেখার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাঁকে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। মোবাইলের কলের সুত্র ধরে চিকিৎসকেরা খবর দেয় সুলেখার বাপের বাড়িতে। শনিবার হরিহরপাড়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে হরিহরপাড়া থানার পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here