ডেস্ক: রবিবারই লোকসভা নির্বাচনের চূড়ান্ত দিনক্ষণ ঘোষণা হয়ে গিয়েছে। সকল রাজনৈতিক দলই নিজেদের নির্বাচনী প্রচারের একেবারে শেষ পর্যায়ে এসে হাজির হয়েছে। এদিকে সদ্য রাজনীতিতে পা রেখেছেন সোনিয়া কন্যা প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে তিনি কী কী পদক্ষেপ নিতে চলেছেন সেদিকে সকলেই তাকিয়ে রয়েছে। কিন্তু এখন শোনা যাচ্ছে যে তিনি লোকসভা নির্বাচন লড়বেন না। বরং দলের প্রচারের দিকে মনোনিবেশ করবেন বলে জানা গিয়েছে। এই খবরকে কেন্দ্র করে বেশ চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে রাজনৈতিক মহলে।

উল্লেখ্য, প্রিয়াঙ্কা গান্ধী এবছরের জানুয়ারি মাসে সক্রিয় রাজনীতিতে প্রবেশ করেন। কংগ্রেস সুপ্রিমো রাহুল গান্ধী তাঁকে উত্তরপ্রদেশের মহাসচিবের দায়িত্ব দিয়েছেন। রাজনীতিতে তাঁর প্রবেশ করা নিয়ে দলেরই কয়েকজন নেতা মন্ত্রীর দাবি যে, চেয়ারপার্সন সোনিয়ার কন্যার আগমনে নাকি ইন্দিরা গান্ধীর প্রাণ ভোমরা কংগ্রেস শিবিরে ফিরে এসেছে। প্রিয়াঙ্কার আগমন কংগ্রেসের মধ্যে বিরাট প্রভাব ফেলেছে। বিভিন্ন প্রদেশেই কংগ্রেস কর্মীরা সাংঘাতিক উত্তেজিত। বিশিষ্ট মহলের দাবি হয়তো বোন প্রিয়াঙ্কার হাত ধরেই আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে নিজেদের হারানো গৌরব পুনরায় ফিরিয়ে আনতে চাইছেন রাহুল।

গতকাল ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণা হওয়ার পর মঙ্গলবার গুজরাতে কংগ্রেস শিবির একটি বড় জনসভা করে। কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকের পর গান্ধীনগরে আয়োজিত এই সভায় সকলের নজর সোনিয়া কন্যা প্রিয়াঙ্কার ওপরেই ছিল। সক্রিয় রাজনীতিতে প্রবেশ করার পর আজকেই তাঁর প্রথম জনসভা ছিল মোদীর গড়ে। এদিনের এই জনসভায় দাঁড়িয়ে নাম না করে বারবার মোদী সরকারের বিরুদ্ধে সরব হন প্রিয়াঙ্কা। সভায় উপস্থিত থাকা সাধারণ জনতার উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনার ভোটই আপনার অস্ত্র। তাই একটু ভাবুন এবং সিদ্ধান্ত নিন। তিনি আরও বলেন, আগামী দিনে আপনারা ভেবেচিন্তে সঠিক সিদ্ধান্ত নিন, ঠিকঠাক বিষয় নিয়ে নিজেদের আওয়াজ তুলুন কারণ এই দেশ আপনাদের সকলের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here