ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে উত্তাল হীরালাল কলেজ, চলল ভাঙচুর, উদ্ধারকর্তা হলেন মদন মিত্র

0
kolkata bengali news

মহানগর জেলাডেস্ক: অতিরিক্ত ফির পাশাপাশি ও ক্লাস উপস্থিতির হার ঠিকঠাক রেজিস্টার করা হচ্ছে না। এই দুই দাবিতে আজ দুপুর থেকে উত্তপ্ত হয়ে রইল দক্ষিণেশ্বরের হীরালাল মহিলা কলেজ। কলেজ অধ্যক্ষকে ঘেরাওয়ের পাশাপাশি রীতিমতো ভাঙচুর চালানো হল কলেজে। বেলাগাম এই পরিস্থিতি সামাল দিতে শেষে মাঠে নামেন কলেজের পরিচালন সমিতির সভাপতি প্রাক্তন মন্ত্রী মদন মিত্র। তিনি এসে নিয়ন্ত্রণে আনেন পরিস্থিতি।

এদিন সকাল থেকেই ফি বৃদ্ধি নিয়ে অধ্যক্ষার ঘরের সামনে প্রতিবাদ জানাতে থাকে ছাত্রীরা। এরপরে ছাত্রীদের সাথে কথা বলতে রাজি হয় অধ্যক্ষা। অভিযোগ, দু’জন ছাত্রী কথা বলে বেরিয়ে আসার পর সকল ছাত্রী মিলে অধ্যক্ষার ঘরে প্রবেশ করতে যায় তখন তাদের বাধা দেওয়া হয়। ছাত্রীদের অভিযোগ, কলেজের পুরুষ অশিক্ষিক কর্মীরা তাদের ধাক্কা দিয়ে বের করে দেয়। এরপরেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে কলেজ। চালানো হয় ভাঙচুর। পাশাপাশি অধ্যক্ষাকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে পড়ুয়ারা। বিক্ষোভের খবর পেয়ে কলেজে উপস্থিত হয় বেলঘরিয়া থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী। এরপরে কলেজে পৌঁছায় প্রাক্তন মন্ত্রী কলেজের পরিচালন সমিতির সভাপতি মদন মিত্র।পরিচালন সমিতির সভাপতি ছাত্রীদের সাথে কথা বলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

ছাত্রীদের দাবি, এদিন তারা অতিরিক্ত মাত্রায় ফি বৃদ্ধি ও কলেজে অনিয়মিত ক্লাসকে কেন্দ্র করে প্রিন্সিপালের সঙ্গে দেখা করতে যায়। প্রিন্সিপালের সঙ্গে দেখা করতে গেলে কলেজের পুরুষ অশিক্ষিক কর্মীরা তাদের সঙ্গে অশালীন ব্যবহার করে ও ধাক্কা দিয়ে বের করে দেয়। এরই প্রতিবাদে তারা কলেজের গেটে বিক্ষোভ দেখায়। কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রী জয়শ্রী রায় ব্যানার্জীর দাবি, তিনি ও আর এক সহপাঠী অধ্যক্ষার সাথে কথা বলতে গেলে অধ্যক্ষা কোনও দাবিই মানেননি। এরপরে সকলে মিলে যেতে গেলে কলেজের পুরুষ অশিক্ষক কর্মীরা তাদের ধাক্কা মেরে সরিয়ে দেয়। আর এক পড়ুয়ার দাবি, ভর্তির পর থেকেই দিনের পর দিন নানান কারণ দেখিয়ে কলেজ কর্তৃপক্ষ টাকা নিচ্ছে। দিনে দিনে টাকার দাবি বেড়েই চলেছে। সামনে বিশ্ব বিদ্যালয়ের পরীক্ষা এখন আবার টাকা চাওয়া হচ্ছে। তা কমানোর দাবি নিয়ে এদিন অধ্যক্ষার সাথে কথা বলতে গেলে দুর্ব্যবহার করা হয়। যদিও কলেজের প্রিন্সিপাল ডঃ সোমা ঘোষ জানান, সামনে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষায় বসার অনুমতি যারা পায়নি তারাই এদিন নানান দাবি নিয়ে বিক্ষোভ ঘেরাও করে। তাঁর আরও দাবি, ছাত্রীরা তাঁকে মারতে উদ্ধত হলে কলেজের কিছু মহিলা ও পুরুষ কর্মী বাধা দিতে যায়। তাদেরও মারধর করে ছাত্রীরা।

এদিন কলেজে এসে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে প্রাক্তন মন্ত্রী মদন মিত্র জানান, ছাত্রীদের কথা তারা শুনেছে। ছাত্রীদের কি কি দাবি তা তারা তাকে জানিয়েছে তিনি অধ্যক্ষার সাথে কথা বলবেন। তিনি আরও বলেন, ছাত্রীদের সাথে কথা বলে তিনি বিক্ষোভ তোলার আবেদন করেন। ছাত্রীরা তা মেনে নিয়েছে। তিনি বলেন, রাত হচ্ছে তাই ছাত্রীদের বাড়ি পৌঁছানোর জন্য বেশ কয়েকটি বাসের ব্যবস্থা করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here