cpim

মহানগর ডেস্ক: পুলিশের মারে যুব নেতা মইদুল ইসলাম মিদ্যার মৃত্যু ও ছাত্র যুব নেতাদের ওপর মামলার প্রতিবাদে আজ রাজ্য জুড়ে রেল রোকো কর্মসূচি ছিল বাম ছাত্র-যুবদের। এই পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী শহর এবং শহরতলীর বিভিন্ন স্টেশনে রেল-রোকো কর্মসূচি পালন করা হয়। বেলা তিনটে থেকে কলকাতার যাদবপুর স্টেশন, বেলঘড়িয়া স্টেশন এবং হুগলীর শ্রীরামপুর স্টেশনে এই কর্মসূচি পালন করা হয়। এই পূর্বঘোষিত কর্মসূচির জন্য আগে থেকে ২০ কোম্পানি রেলপুলিশ মোতায়েন রাখা ছিল। আধ ঘণ্টা এই কর্মসূচি পালন করার পর, এই আন্দোলন প্রত্যহার করে নেন বিক্ষোভকারীরা।

  নবান্ন অভিযানে পুলিশের লাঠিচার্জে ডিওয়াইএফআই কর্মী মইদুল ইসলাম মিদ্যার মৃত্যুর অভিযোগে সরব বামেরা। ১১ ফেব্রুয়ারি বামেদের ডাকা নবান্ন অভিযানে অংশ নেন মইদুল। সেদিন ধর্মতলার ডোরিনা ক্রসিংয়ে ধুন্ধুমার বেধে যায়। ব্যারিকেড ভাঙতে গেলে মিছিলে অংশগ্রহণকারীদের উপর লাঠিচার্জ করে পুলিস। 

বাম নেতাদের দাবি, পুলিসের লাঠির ঘায়ে গুরুতর আহত হন মইদুল। গত সোমবার হাসপাতালে মৃত্যু হয় মইদুলের। প্রতিবাদে বিক্ষোভ-আন্দোলনে নামে বামেরা। পরে বিক্ষোভ-আন্দোলনের সময় এসএফআই কর্মী-সমর্থকদের হাতে হেনস্থার শিকার হন এক পুলিসকর্মী। ঘটনার জেরে পরে প্রায় তিনশো জন ডিওয়াইএফআই কর্মীর বিরুদ্ধে সাতটি ধারায় মামলা দায়ের করে পুলিস। এসবেরই প্রতিবাদে আজ রেল রোকো কর্মসূচির ডাক দেওয়া হয়েছে।   

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here