national news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: করোনা আবহে মুখ ঢেকেছে মুখাবরণে৷ সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে শুধু এন-৯৫ মাস্কই নয় নানা কারুকার্যের মাস্কই এখন দেদার বিকোচ্ছে বাজারে৷ সুতির মধ্যে হরেকরকম প্রিন্ট, বেনারসির সঙ্গে ম্যাচিং মাস্কও তৈরী হতে বাকী নেই৷ সম্প্রতি রূপোর মাস্ক পড়া এক ব্যক্তির ছবিও ভাইরাল হয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়৷ তাহলে সোনাই বা বাদ যায় কেন? এবার আপাদমস্তক সোনার মাস্কে মুখ ঢাকতে দেখা গেল মহারাষ্ট্রের এক বাসিন্দাকে৷ পুনের বাসিন্দা শঙ্কর কুরাড়ে এই সোনার মাস্কটির দাম শুনলে চোখ উঠবে কপালে৷ সোনার এই একটি মাস্কের দাম ২ লক্ষ ৮৯ হাজার৷

ছোট থেকেই সোনার প্রতি অসীম ভালোবাসা শঙ্করের৷ তা এনার গলার মোটা সোনার হার দেখলেই কিছুটা আন্দাজ করা যায়৷ শুধু তাই নয়৷ শঙ্করবাবুর হাতের ১০টি আঙুলই সোনার আংটিতে ঠাসা৷ এছাড়াও হাতে তিনি পড়েন ইয়া মোটা একটি সোনার ব্রেসলেটও৷ সবই অলংকারই যখন সোনার তখন মুখের মাস্কটাই বা কী দোষ করল! তাই মাস্কটিও সোনার তৈরি করার কথা ভেবে ফেলেন শঙ্করবাবু৷

তাঁর কথায়, সোশ্যাল মিডিয়ায় কোলাপুরের এক ব্যক্তিকে রূপোর মাস্ক পড়তে দেখেন তিনি৷ তা দেখেই তার মনে হয় সোনার মাস্ক তৈরি করলে ক্ষতি কী? এরপরই তিনি এক স্যাকরার সঙ্গে কথা বলেন এবং সেই স্যাকরাই তাকে প্রায় আড়াই হাজার গ্রাম সোনার এই মা্স্কটি বানিয়ে দেন৷ শঙ্করবাবু জানিয়েছেন, মাস্কটিতে ছোট ছোট ছিদ্র করা আছে ফলে নিশ্বাস-প্রশ্বাসে অসুবিধা হবে না৷ পরিবারের কেউ যদি এধরণের মাস্ক পড়তে চান তাদেরও সোনার মাস্ক বানিয়ে দেবে বলে জানিয়েছেন শঙ্কর কুরাড়ে৷ তবে এই মাস্কটিতে আদৌ করোনা আটকানো যাবে কিনা তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here