ডেস্ক: রাতভর নিখোঁজ থাকার পর এক বিশালাকার পাইথনের পেটের ভিতর থেকে উদ্ধার হল পৌঢ়ার দেহ। ঘটনাটি ঘটেছে ইন্দোনেশিয়ার মুনা দ্বীপের পার্সিয়াপান লয়েলা গ্রামে। ৫৪ বছর বয়সী মৃত ওই পৌঢ়ার নাম ওয়া টিবা। শনিবার সাংবাদিকদের সামনে এই ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন মুনা দ্বীপের পুলিশ প্রধান হামকা।

সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার নিজের বাড়ির অদূরে সব্জি ক্ষেতে কাজ করছিলেন ওই পৌঢ়া। কিন্তু অনেক রাত অবধি বাড়িতে না ফেরায় টিবার খোঁজ শুরু করেন তাঁর পরিবারের লোকজন। তখনি ক্ষেতের কাছে প্রায় ২৩ ফুট লম্বা বিশালাকার পাইথনটিকে দেখতে পান তাঁরা। তার কিছু দুরেই পড়ে ছিল টিবার চটি ও ক্ষেতে কাজের জন্য ব্যবহৃত খুপরি। সন্দেহ হওয়ায় গ্রামের প্রায় শ’খানেক লোক ডেকে পাইথনটিকে হত্যা করেন গ্রামবাসীরা। এরপর তার পেট কাটতেই দেখা যায় ওয়া টিবাকে। পুলিশের তরফ থেকে জানা গিয়েছে, ওই পৌঢ়াকে যখন উদ্ধার করা হয় তখন তাঁর দেহ প্রায় অবিকৃত অবস্থায় ছিল।

উল্লেখ্য, ইন্দনেশিয়ায় ২১ থেকে ২৪ ফুটের পাইথন দেখতে পাওয়া প্রায় নিত্য দিনের ঘটনা। স্বাভাবিকভাবে এদের খাদ্য হয় ছোট পশুপাখিরাই। তবে এভাবে কোনও মানুষকে গিলে ফেলা অত্যন্ত বিরল ঘটনা। পুলিশের তরফে জানা গিয়েছে, যে অঞ্চলে ওই কৃষক টিবার ক্ষেত ছিল সেখানে অতিকায় পাইথন ছাড়াও বিভিন্ন প্রজাতির সাপের দেখা পাওয়া যায়। পাহাড়ি এই অঞ্চলে প্রচুর পরিমাণে গাছ কাটার ফলে আরও বেশি করে লোকালয়ে ঢুকে পড়ছে এই বন্য প্রাণীরা। যার ফল ভুগতে হচ্ছে মানুষকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here