kolkata bengali news

সমীর গোস্বামী (বিশিষ্ট সাংবাদিক): প্রতিটি ভারতীয়ের মধ্যেই ক্রিকেটের প্রতি একটা ভালবাসা যেন জন্মগত। আজকের দিনে বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া বা টোয়েন্টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের সময় গ্যালারি দেখলেই তা বোঝা যায়। এহেন ক্রিকেটের প্রতি একটা সুপ্ত ভালবাসা যে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরেরও ছিল, তা বোধহয় অনেকেই জানেন না। এমনকি এর জন্য তিনি কিছু সময় মাঠেও নেমেছিলেন। কিন্তু কিছুদিন তালিম নেওয়ার পর তিনি বুঝেছিলেন এই ব্যাট-বল খেলাটা তিনি ঠিক রপ্ত করতে পারবেন না। তাই তিনি ওই খেলা থেকে সরে আসেন অল্পদিনের মধ্যেই।

ষাটের দশকের এক গবেষক, নাম শান্তারাম রাও এই তথ্যটি প্রকাশ করেছিলেন। ১৯৬১ সালের ৮ জুন আমেরিকার ‘লাইফ’ পত্রিকায় ‘ইন্ডিয়াস জেন্টল জিনিয়াস’ শীর্ষক প্রবন্ধে রবীন্দ্রনাথ সম্পর্কে এই মজাদার তথ্যটি প্রকাশ করা হয়েছিল। রবি ঠাকুরের প্রতিভার নানা দিক তুলে ধরতে গিয়ে এই ক্রিকেটের সিক্রেট তথ্যটি তিনি শান্তারাম রাও প্রকাশ করেছিলেন।

এবারে রবীন্দ্রনাথের খেলাধুলা চর্চা সম্পর্কে একটু আলোচনা করা যাক। তিনি ছোটবেলায় কুস্তির তালিম নিতেন তা সকলেই জানেন। ওটা তাঁদের পারিবারিক রেওয়াজই ছিল। এছাড়া সাঁতার ও জুজুৎসুর (জাপানী মার্শাল আর্ট) প্রতিও তাঁর খুব আগ্রহ ছিল। যেহেতু জমিদারীর কাজে তাঁকে গ্রামবাংলার নানা জায়গায় জলপথে যেতে হত, সেই জন্যেই সাঁতারের প্রতি তাঁর একটা আলাদা আগ্রহ তৈরি হয়েছিল। আর জাপান ভ্রমণের সময় সেখানকার জুজুৎসু চর্চা দেখে অভিভূত হয়েছিলেন তিনি। প্রধানত, দুটি কারণে জুজুৎসু ভারতেও প্রসারে আগ্রহী হয়েছিলেন তিনি। প্রথমত, আত্মরক্ষার উপায় শেখা ও দ্বিতীয়ত, মানসিক দৃঢ়টা বৃদ্ধি করা।

 

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here