র‍্যাগিংয়ের অভিযোগে উত্তাল বাঁকুড়ার সরকারি পলিটেকনিক কলেজ, পাল্টা আন্দোলন সিনিয়রদের

0
27

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাঁকুড়া: স্কুল-কলেজের হস্টেলে র‍্যাগিংয়ের ঘটনা নতুন নয়৷ আর এই র‍্যাগিংয়ের শিকার হয়ে অকালেই চলে গিয়েছে তরুণ অনেক প্রাণ৷ তবুও বন্ধ হয়নি জুনিয়রদের ওপর সিনিয়ারগিরি ফলানোর সেই অপরাধমূলক মানসিকতা৷ এবার র‍্যাগিংয়ের অভিযোগে তেতে উঠল রাজ্যের আরও একটি সরকারি পলিটেকনিক কলেজ৷ বাঁকুড়ার এই সরকারি পলিটেকনিক কলেজে বার্ষিক অনুষ্ঠানের নামে জোর করে টাকা আদায় ও তা দিতে অস্বিকার করায় সম্পর্কে ভাই বোন দুই প্রথম বর্ষের ছাত্র ও ছাত্রীর ওপর র‍্যাগিংয়ের অভিযোগ উঠল ওই কলেজেরই সিনিয়র ছাত্রদের বিরুদ্ধে। র‍্যাগিংয়ের অভিযোগ ভিত্তিহীন দাবি করে আন্দোলনে নেমেছে ওই কলেজের দ্বিতীয় ও তৃতীয়বর্ষের ছাত্রছাত্রীরা। আন্দোলনে যোগ দিয়েছে প্রথম বর্ষের ছাত্র ছাত্রীদের একাংশও। বিষয়টি নিয়ম মোতাবেক পুলিশকে জানানো হয়েছে বলে জানিয়েছে কলেজ কর্তৃপক্ষ।

সারা রাজ্যের পাশাপাশি সম্প্রতি বাঁকুড়া গভর্নমেন্ট পলিটেকনিক কলেজেও প্রথমবর্ষের ক্লাস শুরু হয়েছে দিন কয়েক আগে। অভিযোগ, ক্লাস শুরু হতেই কলেজের সিনিয়র ছাত্ররা প্রথমবর্ষের ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে সাদা কাগজে ছাপানো একটি ফর্ম্ ধরিয়ে দিয়ে নির্দিষ্ট অঙ্কের টাকা দাবি করে। ওই ফর্মে কোনও কারণ না দেখিয়েই মাথা পিছু দেড় হাজার করে টাকা চাওয়া হয় বলে অভিযোগ। বিষয়টির প্রতিবাদ করায় ও সিনিয়র ছাত্রদের দাবি মতো টাকা দিতে রাজী না হওয়ায় ইলেক্ট্রিক্যাল ট্রেডের প্রথমবর্ষের ছাত্রী সৌমিতা লোহার ও মেকানিক্যাল ট্রেডের প্রথমবর্ষের ছাত্র প্রবাল লোহারের ওপর মানসিক নির্যাতন চালানো হয় বলে অভিযোগ। সম্পর্কে ভাই-বোন ওই দুই ছাত্র-ছাত্রী কলেজের অধ্যক্ষর কাছে লিখিতভাবে র‍্যাগিংয়ের অভিযোগ জানায়। বৃহস্পতিবার অভিযোগকারী ওই দুই ভাই-বোনকে কলেজ থেকে বাড়ি ফিরিয়ে আনতে গেলে অভিভাবকদেরও কলেজ ক্যাম্পাসের বাইরে যাওয়ার ক্ষেত্রে সিনিয়ার ছাত্ররা বাঁধা দেয় বলে অভিযোগ।

এদিকে ওই দুই ছাত্র-ছাত্রী কলেজের সিনিয়র ছাত্রদের বিরুদ্ধে র‍্যাগিংয়ের অভিযোগ আনতেই পাল্টা আন্দোলন শুরু করেছে কলেজের সিনিয়র ছাত্র-ছাত্রীরা। র‍্যাগিংয়ের অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা এই দাবি করে এদিন দিনভর কলেজের মূল দরজা বন্ধ রেখে স্লোগান দিতে থাকে সিনিয়র পড়ুয়ারা। সিনিয়র পড়ুয়াদের সঙ্গে আন্দোলনে যোগ দেয় প্রথমবর্ষের ছাত্র-ছাত্রীদের একাংশও। আন্দোলনকারীদের দাবি কলেজে পড়ার সময় তিন বছর ধরে যে অনুষ্ঠান হবে তার খরচ হিসাবে ওই টাকা চাঁদা হিসাবে নেওয়া হচ্ছিল। র‍্যাগিং তো দুরস্ত কেউ ওই অঙ্কের টাকা দিতে অসমর্থ হলে তাকে সিনিয়রদের জানানোর কথাও বলা হয়েছিল। এখন ওই দুই ভাই-বোন সিনিয়ার ছাত্রদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ আনছে। কলেজ কর্তৃপক্ষের তরফে জানানো হয়ে র‍্যাগিংয়ের অভিযোগ আসতেই নিয়ম অনুযায়ী তা পুলিশের কাছে পাঠানো হয়। পুলিশ তদন্ত করে অভিযোগের সত্যতা পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here