রাহুল গান্ধী

মহানগর ডেস্ক: জাতীয় নাগরিক পঞ্জির তালিকা প্রকাশের পর থেকেই অগ্নিগর্ভ অসম। এনআরসি তালিকা থেকে বাদ  গেছে প্রায় ১৯ লক্ষ নাগরিকের নাম। বাদের তালিকায় রয়েছে লক্ষ লক্ষ হিন্দুও। এনআরসি বিরোধী আন্দোলনে একাধিকবার রক্তক্ষয়ী পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে অসমের রাজপথ জুড়ে। এনআরসি আবহেই চলতি বছরেই অসমে হতে চলেছে বিধানসভা নির্বাচন। সেই নির্বাচন কে সামনে রেখেই অসমে আগামী ১৪ই ফেব্রুয়ারী রাজনৈতিক সভা করতে চলেছেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী।  

ইতিমধ্যেই ভোটের দামামা বেজে গেছে পশ্চিমবঙ্গ, কেরল, পন্ডিচেরী, অসম, তামিলনাড়ুর মতো পাঁচ রাজ্যে। তার আগেই নির্বাচনী প্রস্তুতিকে ঘিরে চরম ব্যস্ত সমস্ত রাজনৈতিক দলই। গত রবিবার অসমে রাজনৈতিক সভা করে গেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এবার অসমের শিবসাগরে রাহুল গান্ধীর রাজনৈতিক সভা করার কথা ঘোষণা করল কংগ্রেস। নির্বাচনী প্রচারে রাহুলের পাশাপাশি প্রিয়াঙ্কা গান্ধীও আসতে পারেন বলে জানা গিয়েছে।

উল্লেখ্য, ভারতের মধ্যে প্রথম এনআরসি-র প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে অসমেই। যা নিয়ে একাধিক বিক্ষোভ আন্দোলনের সাক্ষী থেকেছে অসম। গত বছর সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন পাশ হওয়ার পর ফের আন্দোলন তীব্র হয়। এনআরসি-র তালিকা থেকে বাদ পরে প্রায় ১৯লক্ষ নাগরিকের নাম। বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াইকে তিব্র করতে ভোটের আগেই জোট বেঁধেছে অসম জাতীয় পরিষদ এবং রাইজোর দল। অন্যদিকে বিজেপিকে গদিচ্যুত করতে অসমের সর্বভারতীয় ইউনাইটেড ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট সহ আরও চারটি আঞ্চলিক দলের সাথে জোট বেঁধেছে কংগ্রেস।

এদিকে এনআরসি-র বিরুদ্ধে প্রতিবাদ উষ্কে দিয়ে কিছুদিন আগেই শিলচরের প্রাক্তন কংগ্রেস সাংসদ সুস্মিতা দেব বলেন, “বিজেপিকে ভোট দিলে এনআরসি-র লাইনে দাঁড়ানোর জন্যে তৈরি হয়ে যান।” এমন পরিস্থিতে নির্বাচনের আগে কংগ্রেস নেতা রাহুলের অসম সফরকে যথেষ্ট গুরুত্ত দিয়েই দেখছে রাজনৈতিক মহল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here