ডেস্ক: ‘এযেন ভুতের মুখে রাম নাম! নিশ্চিতভাবে এটা বিজেপির কাছে ভীষণ বড় সাফল্যের। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হেরে গিয়েছেন হিন্দুত্বের কাছে। তাই এবার রাম নাম জপতে বাধ্য হচ্ছেন তাঁরা। এই রাম নামের মধ্যেই শুরু হল তৃণমূলে অন্তিম যাত্রা।’ হুগলীর চুঁচুড়ায় রামনবমীর মিছিলে অংশ নিয়ে এই ভাষাতেই তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করেন বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা।

এদিন রামনবমীর মিছিলে অংশ নিয়ে সাংবাদিকদের সামনে রাহুল সিনহা বলেন, ‘গতবছর রামনবমীর মিছিল আটকাতে গিয়ে হেরে গিয়েছেন। সেবার আইনকে বিপথে চালনা করার চেষ্টা করেছেন। নিজেদের বিপদ যে এগিয়ে আসছে তা বুঝতে পেরে এবার নিজেরাও নেমেছেন রামনবমী পালন করতে। সামনের বছর দেখবেন মমতা নিজেই অস্ত্র নিয়ে মিছিলে অংশ নিয়েছেন।’

উল্লেখ্য, গত বছর রামনবমীকে মাধ্যম করে উত্তাল পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল বঙ্গীয় রাজনীতিতে। তৃণমূল সরকার রামনবমীর অস্ত্র মিছিল বন্ধ করে দিলে রাজ্য বিজেপি আদালতের দ্বারস্থ হয়। এবং জয় হয় বিজেপির। ঠিক তার পরেই এবছর সাড়ম্বরে রামনবমী পালিত হয় রাজ্য জুড়ে। শুধু তাই নয়, বিজেপির পাশাপাশি রাম নবমীতে অংশ নিতে দেখা যায় তৃণমূলকেও। শহরের বুকে রামনবমীর এক অনুষ্ঠানে অংশ নিতে দেখা যায় তৃণমূল নেতা ফিরহাদ হাকিমকেও। সব মিলিয়ে রাজ্যের রাজনৈতিক নেতাদের এহেন রামপ্রীতি নিয়ে উঠে আসছে নানান প্রশ্ন।

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, যেভাবে রাজ্য জুড়ে গেরুয়া দাপট শুরু হয়েছে তাতে আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনে আকাশে বিজেপির কালো মেঘ দেখছে তৃণমূল। রামনবমীকে মাধ্যমকে যেভাবে বিজেপি প্রতিটি জায়গায় নিজেদের অবস্থান জাহির করছে তাতে চিন্তায় তৃণমূল। রামভক্তিতে তৃনমূল নেতারাও যে কিছু কম যান না তা প্রমান করতে উঠে পড়ে লেগেছে তাঁরা। সবমিলিয়ে তৃণমূল বিজেপির মিলিত প্রচেষ্টায় রামভক্তির জোয়ার উঠল রাজ্য জুড়ে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here