rahul

ডেস্ক: তিরুনেল্লি মন্দিরে এসে রাহুলের পুরানো কথা মনে পড়ে গেল৷ সেই ১৯৯১ সালের কথা৷ তাঁর তখন মাত্র ২১৷ অকালে পিতৃ বিয়োগ হয়েছিল তাঁরা৷ তাঁর বাবার ছাইভস্ম এই মন্দিরে সংরক্ষণ করা রয়েছে৷ শুধু বাবা নয়, ঠাকুমার ছাইভস্মও এখানেই সংরক্ষিত আছে৷ তাই এখানে এসে কিছুক্ষণের জন্য অতীতে ডুবে গিয়ছিলেন প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীর একমাত্র ছেলে তথা প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর নাতি রাহুল৷ ওয়েনাড়ে তাঁর নির্বাচনী কেন্দ্রর মধ্যে এই মন্দির৷ বুধবার সকালে একেবারে দক্ষিণী ব্রাহ্মণদের মতো ধুতি পরে পুজো দিতে দেখা গেল রাহুলকে৷ সঙ্গে ছিলেন কে করুণাকরন, কেসি বেণুগোপাল প্রমুখ কেরল প্রদেশ কংগ্রেসর শীর্ষ নেতারা৷

আজ থেকে ২৮ বছর আগে এই মন্দিরের পাশে পাপনাশিনি নদীতে রাজীবের চিতাভস্ম ভাসানো হয়েছিল৷ এমনকী আর এক প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর চিতাভস্মও ভাসানো হয়েছিল৷ গত বছর গুজরাত ভোটের সময় থেকে রাহুল গান্ধী মন্দিরে মন্দিরে পুজো দিতে শুরু করেছেন৷ তাই নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও তাঁর দল কংগ্রেস সভাপতিকে এই নিয়ে কড়া ব্যক্তি আক্রমণ করেছিলেন৷ সেই থেকে মিডিয়ায় নরম হিন্দুত্ব শব্দটির প্রচলন হয়েছে৷ বিজেপির অভিযোগ তাদের সাম্প্রদায়িক দল বললেও কংগ্রেস নিজে সাম্প্রদায়িক রাজনীতি করছে৷

শুধু বিজেপি নয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও রাহুলের হিন্দুত্ব নিয়ে চাপান উতোর আজও হয়৷ এর আগে এই মন্দিরে পুজো দিতে আসতে চেয়েছিলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধি৷ তবে নিরাপত্তার জন্য পারেননি বলে জানান কেসি বেণুগোপাল ৷ বুধবার রাহুল প্রয়াত পিতা, ঠাকুমার সঙ্গে বালাকোটে শহিদ সেনাদের স্মৃতির প্রতি শ্রদদ্ধা জাননা ও তাঁএদর নামে পুজো দেন৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here