kplkata bengal news

নিজস্ব প্রতিবেদক, রায়গঞ্জ: দশমীর দিন এক তরুণীর শ্লীলতাহানির অভিযোগকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়াল রায়গঞ্জে। এই ঘটনায় বিক্ষোভ দেখাতে গিয়ে পুলিশকে মারধর ও থানা ভাঙচুরের জন্য ১ তৃণমূল ছাত্র নেতাকে আটক করা হয়েছে। আহত ৩ পুলিশ কর্মী।

মঙ্গলবার উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জ এলাকার বকুলতলায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ল এক তরুণীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে। রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই ছাত্রীর অভিযোগ, নদীতে প্রতিমা বিসর্জন দেখতে সকলের মত তিনিও গিয়েছিলেন। রাত ১১ টা ৩০ নাগাদ এক যুবক তাঁর শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে। এমনকি ঘুষি মারা ও ওড়না টানার অভিযোগও করা হয়েছে। যুবতীর দাবি, এরপরেই তিনি ওই যুবককে চড় মেরে পালিয়ে যান। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, পরে তৃণমূলের ছাত্র পরিষদের বেশ কয়েকজন যুবক এবং ওই যুবতী বিবেকানন্দ মোড়ের কাছে এসে অভিযুক্তকে মারধর করে।অভিযোগ, শোভাযাত্রায় সময় গুলিও চালানো হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশ লাঠিচার্জ করে।  দলের এক ছাত্র নেতাকে আটক করা হয়। আহত হন বেশ কয়েকজন দলীয় কর্মী। এরপরেই, প্রায় ৫০০ জন তৃণমূল ছাত্র পরিষদ কর্মী থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখায়। অভিযোগ, থানা ভাঙচুর করার সাথে পুলিশদের মারধর করা হয়। ঘটনায় সন্দীপ চক্রবর্তী সহ ৩ পুলিশ কর্মী আহত হন। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জেলা পুলিশ সুপার সুমিত কুমার বলেন, সন্দেহের বশে এক যুবককে মারধর করা হচ্ছিল। পরিস্থিতি সামাল দিতেই লাঠিচার্জ করা হয়েছে। তৃণমূলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, লিখিতভাবে থানায় অভিযোগ জানানো হয়েছে। শ্লীলতাহানির ঘটনায় কেউ এখনও পর্যন্ত গ্রেফতার হয়নি। দলের পক্ষ থেকে এও অভিযোগ করা হয়, পুলিশ অকারণে লাঠিচার্জ করেছে ও ছাত্র নেতাকে আটক করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here