মহানগর ওয়েবডেস্ক: তুমি যেই হও না কেন, পরিশ্রম তোমায় করতেই হবে। সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে টিকে থাকতে গেলে এই পরিশ্রমটা লাগে। এমনটাই মনে করেন রাইমা সেন।

বলিউডে এক শ্রেণী যখন স্টার কিড কিংবা নেপোটিজমের দোহাই দিয়ে নিজেদের কাজ না পাওয়ার ব্যর্থতা ঢাকতে ব্যস্ত, তখনই নিজের মুখ খুললেন রাইমা। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন, ‘পারিবারিক ব্যাকগ্রাউন্ড সিনেমা জগতের সঙ্গে যুক্ত থাকলে সহজেই ছবি পাওয়া যায় এটা ভুল কথা। তেমনটা যদি হত তাহলে আজ আমি দেশের সেরা অভিনেত্রী হতাম। ১৯৯৯ সালে বলিউডে ‘গড মাদার’ ছবির মাধ্যমে ডেবিউ করেন রাইমা।

সেই প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন , ‘ওটাই শেষ, তারপরে কিন্তু সহজেই আমি ১০০টা ছবি হাতে পেয়ে যায়নি। অনেক পরিশ্রম করতে হয়েছে আমাকে, এখনও করছি। ওই সময়ের মাঝেই আমি কলকাতা যাই, আর একাধিক বাংলা ছবিতে কাজ করি। বলিউডে আঞ্চলিক ছবির তারকাদের সম্মান দেওয়া হয়। আমার চোখের বালি কিংবা দ্যা জাপানিজ ওয়াইফ-এর জন্য যথেষ্ট প্রশংসা করে। কিন্তু এটা কোনও সুযোগ নয় বলিউডে কাজ পাওয়ার। বলিউডে কাজ করতে গেলে প্রতি মুহূর্তে তোমাকে প্রমাণ করতে হবে।’ তিনি আরও জানিয়েছেন, ‘যদি তোমার ট্যালেন্ট থাকে, তুমি ঠিকই রাস্তা খুঁজে পাবে। বহু স্টার কিড আছে যারা কিছুই করতে পারেনি। যে কোনও মানুষের ছবি না চললে তাকে কেউ মনে রাখবে না, স্টার কিডদের ক্ষেত্রেও একই ঘটনা।’

বলিউডে বহিরাগত ও স্টার কিড বিতর্কে রাইমা জানিয়েছেন, ‘প্রত্যেকটি ক্ষেত্রেই এই লড়াই রয়েছে। বলিউডের ক্ষেত্রে একটু বেশি কঠিন। যদি তুমি মনে করি পরিশ্রম না করে বলিউডে সেরা তকমা পেয়ে যাব, তাহলে ভুল ধারণা। ‘

তবে রাইমা স্বীকার করেছেন বলিউডে একটি গ্রুপবাজি চলে। অভিনেত্রী জানিয়েছেন, ‘হ্যাঁ বলিউডে একটা গ্রুপ রয়েছে। কিন্তু আমি তার অংশ নই, এমনকি আমি কোনও পার্টি করি না। শুধু পার্টি করলেই কারোর হাতে কাজ আসে না। যোগ্যতার ভিত্তিতে কাজ পাওয়া যায়।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here