ডেস্ক: অনেকেই বলেন ‘তেনারা’ আছেন, কেউ কেউ আবার মানতে চান না। কিন্তু এই ‘তেনাদের’ উপস্থিতির ভয়েই সরগরম রাজস্থান বিধানসভা কক্ষ। ভারতের সংবিধানে ভুল বা অলৌকিকতার উল্লেখ না থাকলেও, ভুতের ভয়েই তটস্থ হয়ে পড়েছেন সেখানকার বিধায়কেরা। পুরো ঘটনাটি রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজেকে জানানো হলে, তিনি রীতিমতো পুরোহিত ডেকে করে সেই ভুত ছাড়ানোর জন্য পুজো-আচ্চারও ব্যবস্থা করে দিয়েছেন।

গতকয়েক বছর ধরেই আশ্চর্যজনকভাবে রাজস্থান বিধানসভার ২০০টি আসন কখনই ভর্তি হয়নি। কখনও পদত্যাগ, জেলযাত্রা বা অকস্মাৎ মৃত্যুর কারণে হামেশাই বজায় থেকেছে এই অনুপস্থিতির রীতি। আর এই অনুস্পস্থিতির পুরো দোষটাই গিয়ে পড়েছে ভুতেদের উপর। রাজস্থান বিধানসভার বিজেপি বিধায়কদের আশঙ্কা, তাদের উপর নাকি প্রেতাত্মার নজর পড়েছে। পুরো ঘটনার সূত্রপাত হয় গত ছ’মাস যাবত দুই বিধায়কের মৃত্যুর কারণে। গত মঙ্গলবার আরেক বিধায়ক সিং চৌহানের মৃত্যুর পরই ভয়ে হাড় কেঁপে যায় বিজেপি প্রার্থীদের। এরপরই বিজেপি বিধায়ক হাবিবুর রহমান মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজেকে ভূত তাড়ানোর যজ্ঞ করার আর্জি জানান।

ঘটনা হল, বিধানসভার ২০০ মিটার অদূরেই অবস্থিত লাল কোঠি মোক্ষ ধাম শ্মশান। দেশের অন্যতম অত্যাধুনিক বিধানসভা হওয়া সত্ত্বেও বিধায়কদের ধারণা, প্রেতাত্মাদের নজর পড়েছে তাদের উপর। তাই ভুত ছাড়াতে যজ্ঞেরও ব্যবস্থা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। পুরোহিত দিয়ে যজ্ঞের পর ভুতেদের নজর থেকে বিধানসভা মুক্ত হও কিনা এখন সেটাই হবে দেখার বিষয়।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here