অন্তরালে থেকেই আরও পাঁচ দিন ছুটি বাড়ল রাজীবের, রাজ্যের ভূমিকায় চরম ক্ষুব্ধ সিবিআই

0
2721
kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: সিবিআইয়ের খাতায় পলাতক কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার। বার বার নোটিস দিয়েও তাঁকে হাজির করাতে পারেনি কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। গত ১৩ই জুলাই রাজীব কুমারের গ্রেফতারির উপর থেকে কলকাতা হাইকোর্ট সমস্ত রকম রক্ষাকবচ তুলে নেওয়ার পর, সারদা মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাঁকে ডেকে পাঠায় সিবিআই। পরদিন শনিবার বেলা দুটো অবধি হাজিরার সময় থাকলেও দেখা পাওয়া যায়নি রাজীব কুমারের। এরপর বিকেলে আইনজীবী মারফত সিবিআইকে ই-মেল করে রাজীব কুমার জানান, আগামী পঁচিশে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ছুটিতে আছেন তিনি। তাই সিবিআই দপ্তরে হাজিরার জন্য কিছুটা সময় চেয়ে নেন তিনি।

এরপর গঙ্গা দিয়ে গড়িয়ে গিয়েছে বহু জল। এক এক করে রাজীব কুমারকে মোট চার দফায় নোটিস পাঠিয়েছে সিবিআই। সূত্রের খবর, রবিবার সিবিআই চতুর্থ নোটিসটি সারদা নয়, রোজ ভ্যালি মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঠায় রাজ্যের গোয়েন্দা প্রধানকে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রবিবার দুপুরে পার্ক স্ট্রিটে রাজীব কুমারের সরকারি আবাসনে গিয়ে তাঁর স্ত্রী সঞ্চিতা কুমারের হাতে নোটিস দিয়ে আসে সিবিআই। এরপরেই সিবিআইকে এই নোটিসের জবাব পাঠিয়ে দেন কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার। সূত্রের খবর, জবাবে রাজীব কুমার সিবিআইকে জানিয়েছেন, তিনি আগামী তিনি ৩০শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ছুটিতে রয়েছেন। তাই তাঁর হাজির হতে কিছুটা সময় চান তিনি। আর এখানেই উঠছে একাধিক প্রশ্ন। প্রথম জবাবে রাজীব কুমার জানিয়েছিলেন, পঁচিশে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তিনি ছুটিতে আছেন, এর ঠিক এক সপ্তাহ পরেই তিনি জানাচ্ছেন, তিরিশে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ছুটিতে রয়েছেন। তা হলে বাকি পাঁচ দিনের ছুটি বর্ধিত হল কী ভাবে? তাহলে কি সিবিআইয়ের চোখে ধুলো দিয়ে অন্তরালে থেকেই আরও পাঁচ দিন ছুটি বাড়িয়ে নিলেন মুখ্যমন্ত্রী ঘনিষ্ঠ এই দুঁদে আইপিএস?

রাজীব কুমারের ছুটির মেয়াদ বৃদ্ধিতে আরও প্রশ্ন উঠছে রাজ্য সরকারের ভূমিকায়। সিবিআই সূত্রে খবর, রাজীবের ছুটি বৃদ্ধিতে রাজ্য সরকারের ভূমিকায় বেজায় ক্ষুব্ধ হয়েছেন তদন্তকারী আধিকারিকরা। কারণ তিনি নিজে থেকে ছুটির মেয়াদ বৃদ্ধির আবেদন না জানালে তাঁর ছুটি বাড়তে পারে না। সিবিআই যখন রাজীব কুমারকে পলাতক ঘোষণা করেছে এবং তার অবস্থান জানতে চেয়ে রাজ্য পুলিশের ডিজিকে চিঠি পাঠিয়েছে, তখন রাজ্য সরকারের তরফে জানানো হয়েছিল রাজীব কুমারের বর্তমান অবস্থান সম্পর্কে তাদের কিছু জানা নেই। এই অবস্থায় রাজীব অন্তরালে থেকে ছুটির মেয়াদ বৃদ্ধির আবেদন জানালে, তা খারিজ করে রাজীবকে অবিলম্বে সিবিআই দফতরে হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ না দিয়ে, বরং সেই আবেদনে সিলমোহর কী করে রাজ্য দিল, সেই প্রশ্নই তুলছেন সিবিআই আধিকারিকরা। কারণ রাজ্য সরকারের শীর্ষ স্তর অথবা পুলিশের সর্বোচ্চ কর্তার অনুমতি না মিললে রাজীব কুমারের ছুটি বৃদ্ধি হতে পারে না। ফলে যাকে গ্রেফতার করতে হন্যে হয়ে খুঁজছে সিবিআই, তাকেই কি আরও পাঁচ দিন ছুটি বৃদ্ধি করে সুযোগ পাইয়ে দিচ্ছে রাজ্য সরকার? এই প্রশ্নেই রাজ্যের ওপর বেজায় ক্ষুব্ধ সিবিআই। সূত্রের খবর, এই ঘটনাকে হাতিয়ার করে নবান্ন এবং রাজ্য পুলিশের ডিজিকে জবাব তলব করে ফের চিঠি পাঠাতে পারে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here