FotoJet1264

ডেস্ক: কিছুদিন আগেই অভিনয়ের পাশাপাশি রাজনীতিতে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রবেশ করেছিলেন দক্ষিণের সুপারস্টার। তিনি জনগণের কাজ করবেন বলেই রাজনীতিতে এসেছেন এটা জানান। কিন্তু তারপরে রজনীকান্তকে ভারতের রাজনীতি কিংবা দক্ষিণের রাজনীতিতে প্রবেশ করতে দেখা যায়নি তাঁকে। কিন্তু তাঁর দীর্ঘদিনের লড়াই চালিয়ে গিয়েছেন। রজনীকান্তের মূল লড়াই ভারতের নদীগুলোকে সংস্কার করে একসঙ্গে সংযুক্তিকরণ। আর তাঁর দাবিকেই মান্যতা দিয়ে নিজেদের ইস্তেহারে উল্লেখ করেছে বিজেপি।

তাঁদের নির্বাচনি ইস্তেহারে স্পষ্ট উল্লেখ করা হয়েছে ভারতের বেশ কিছু নদীকে সংযুক্তি করণ ঘটিয়ে জলের অভাব দূর করা। কিছুদিন আগেই রজনীকান্ত জানিয়েছিলেন চলতি লোকসভা ভোটে লড়বে না তাঁর দল। ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনে তামিলনাড়ুতে ভোটে লড়বেন বলে জানিয়েছিলেন রজনি। তবে দক্ষিণের নদিগুলোকে মজে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা পাওয়া ও ভারত যেহেতু নদীমাতৃক দেশ তাই নদী বাঁচানোর জন্য লড়াই তাঁর দীর্ঘদিনের। আর তাঁর যুক্তিকে মান্যতা দিয়ে বিজেপি চলতি লোকসভা ভোটে নিজেদের ইস্তেহারে জানিয়েছেন। রজনীকান্ত এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, ”আমাদের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীজির এটা স্বপ্নের প্রজেক্ট ছিল। উনি যখন প্রধানমন্ত্রী ছিলেন তখন আমি দেখা করতে গিয়েছিলাম। তাঁর সঙ্গে আমার এই বিষয়ে আলোচনা হয়েছিল। আমরা দু’জনে এই প্রকল্পের নাম দিয়েছিলাম ‘ভাগিরথী যোজনা’। কিন্তু তারপরে এই কাজ নিয়ে কেউ মাথা ঘামাননি। কিন্তু বিজেপি গতকাল যে ইস্তেহার প্রকাশ করেছে তাঁরা এই বিষয়ে কথা দিয়েছে।”

 

রজনীকান্তের মূল বক্তব্য এই কাজের ফলে মানুষের চাষ-বাসের সুবিধা হবে, কৃষকেরা বাঁচবে, মানুষ কাজ পাবে, দেশের উন্নতি হবে। কিছুদিন আগেই রজনীকান্ত জানান, ”তামিলনাড়ুতে মূল সমস্যা হল জলের ঘাটতি। আমি প্রত্যেক রাজনৈতিক দলের কাছে অনুরোধ করছি, যেন ভোটে জিতে এই কাজটি করেন তাঁরা।” রজনীকান্ত আপাতত ব্যস্ত তাঁর আগামী সিনেমার শ্যুটিং নিয়ে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here