অমিত সাক্ষাতের পরই তৃণমূলে যোগ পুরুলিয়ার রাজোয়াড় পরিবারের

0
264

ডেস্ক: অমিত শাহের সভা শেষ হতেই তৃণমূল কর্মীরা পুরুলিয়ায় এসে হাজির। লাগদা গ্রামে গতকাল যে পরিবারগুলির সঙ্গে অমিত শাহ গিয়ে কথা বলেন, তাদের বাড়িতে রাত না পোহাতেই এসে হাজির তৃণমূল কর্মীরা। ওই পরিবারের চার সদস্যকে কলকাতাতেও নিয়ে আসা হয়েছে। এই নিয়ে রাজ্য রাজনীতিতে গতকাল থেকেই চলছিল বিভিন্ন জল্পনা। শুক্রবার সকালে পুরুলিয়ায় তৃণমূলের জেলা সহ সভাপতি মানিকমণি মুখার্জী এই খবর নিশ্চিত করে সকল জল্পনার অবসান ঘটান।

তিনি বলেছেন গোবিন্দ রাজোয়াড় ও তাঁর মা অষ্টমী রাজওয়াড় এবং শিশুবালা রাজোয়াড় ও তাঁর ছেলে সঞ্জয় আপাতত কলকাতার কালীঘাটে আছেন। কিছুক্ষণের মধ্যেই আনুষ্ঠানিক ভাবে স্বেচ্ছায় তারা তৃণমূলে যোগ দেবেন। বৃহস্পতিবার পুরুলিয়ার লাগদা গ্রামে গিয়ে অমিত শাহ এই পরিবারগুলির সঙ্গে কথা বলেন, তাদের হাতে কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন প্রকল্পের লিফলেট তুলে দেন। সেইসঙ্গে তাদের সমস্যার কথাও শোনেন তিনি। ওই পরিবারের তরফে তাঁকে জানানো হয় যে তারা এখনও পর্যন্ত কোনও প্রকল্পের সুবিধাই পাননি। এই পর্ব মিটতেই রাজোয়াড়দের বাড়িতে যান তৃণমূলের নেতারা। সেখানে গিয়ে তাদের সবরকম সুযোগ সুবিধা দলের তরফে দেওয়ার প্রতিশ্রুতিও দেওয়া হয়। এরপরই ওই পরিবার কলকাতায় এসে তৃণমূলে যোগ দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেন। পুরুলিয়ার জেলা সহ সভাপতি মানিকমণিবাবু বলেন, রাজোয়াড় পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন অমিত সাহ ওদের বাড়িতে আসবেন সেটা একেবারেই অজানা ছিল তাদের। এইভাবে হঠাৎ এসে তাদের একপ্রকার বিভ্রান্তই করছেন।

তবে রাজোয়াড় পরিবারের এই হঠাৎ করে তৃণমূলে যগদানকে মোটেই ভালো চোখে দেখছেন না রাজনৈতিক মহল। বিজেপির কথা শুনলে ওই পরিবার তৃণমূলের কাছে চিহ্নিত হয়ে যেত পারত, আর সেই ভয়েই তারা তৃণমূলে যোগদান করছেন অভিযোগ বিরোধীদের। তবে এই প্রশ্নও বারবার উঠছে শুধুই কি ভয়? নাকি অন্য কোনও সুযোগ সুবিধা দেওয়ার টোপ দেওয়া হয়েছে? এইনিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজা। এরকম ঘটনা রাজনীতির ইতিহাসে এই প্রথম নয়, এর আগেও নকশালবাড়িতে এক আদিবাসী দম্পতির বাড়িতে মহাভোজ খেয়েছিলেন অমিত শাহ। তার পরদিনই ওই দম্পতি রাজু মাহালি ও গীতা মাহালি তৃণমূলে যোগ দিয়েছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here