একেই বলে জেলের ঘানি, ২ বছরে রামরহিমের ওজন কমল ১৫ কেজি, কামালেন ১৮ হাজার

0
1120

মহানগর ওয়েবডেস্ক: কয়েদি নম্বর ৮৬৪৭। দোষী ধর্ষণকাণ্ডে। বর্তমান ঠিকানা সুনারিয়া জেল। দু’বছর হল টানছেন জেলের ঘানি। না এইটুকুতে চিনতে পারার কথা নয়। তবে এবার বোধহয় চিনতে পারবেন। এনার নাম গুরমিত বাবা রাম রহিম। হরিয়ানার ডেরা সচ্চা সৌদার প্রধান। ধর্ষণের দায়ে ২ বছর হল সাজা কেটে ফেলেছেন তিনি। তবে এই দু’বছরে জেলের হাওয়ায় একেবারে ভোল পাল্টে গিয়েছে তাঁর। বাবা সেজে দীর্ঘদিন ধরে আমে দুধে যে জেল্লা বাড়িয়েছিলেন তিনি তা একেবারে ম্যাজিকের মতো উধাও হয়ে গিয়েছে তাঁর শরীর থেকে। শুধু তাই নয়, আগের সেই নাদুস নুদুস শরীর থেকে চর্বি কমিয়েছেন প্রায় ১৫ কেজি। আগের মতো না হলেও এখন অল্পবিস্তর ইনকামও চলছে জেল থেকে। ২ বছরে তাঁর আয় দাঁড়িয়েছে ১৮ হাজার টাকা।

সালটা ২০১৭ ২৫ অগস্ট প্রচুর কাঠখড় পড়ানোর পর আদালতের নির্দেশ মেনে ধর্ষণকাণ্ডে তাঁকে গ্রেফতার করতে সমর্থ হয় হরিয়ানা প্রশাসন। তবে বাবার সাঙ্গোপাঙ্গদের দাপটে ঘটে বেশ কয়েকটি মৃত্যুর ঘটনা। পঞ্চকুলা সিবিআই আদালতের নির্দেশে ২০ বছরের সাজা হয় রাম রহিমের। এদিকে আর ১০ দিন পর রাম রহিমের জন্মদিন। মহা ধুমধামে এবার তাঁর জন্মদিনের হাফ সেঞ্চুরি সেলিব্রেট করবে তাঁর ভক্তগন। তার ফলে কড়া নিরাপত্তা জারি হয়েছে জেলে। তাঁর সঙ্গে যারা সাক্ষাৎ করতে আসবেন তাঁদের নাম ধাম সমস্ত কিছুর খোঁজ খবর নিয়ে তবে অনুমতি দেবে পুলিশ। তাও একেবারে সীমিত কয়েকজনকে। জেল সূত্রে জানা গিয়েছে, জেলের মধ্যে প্রচুর কাজ করছেন তিনি। তাঁর ফলে আগে যেখানে তাঁর ওজন ছিল ১০৫ কেজি ২ বছরে তা কমে গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৯০ কেজিতে। আর এতদিনে জেলের মধ্যে কাজ করে তাঁর আয় হয়েছে ১৮ হাজার টাকা।

জেল সূত্রে জানা গিয়েছে, জেলে একজন কর্মচারী হিসাবে সাধারণ কাজ করেন রামরহিম। তাঁর দৈনিক আয় ৪০ টাকা। তবে আরও একটি ভালো খবর শুনিয়েছে জেল কর্তৃপক্ষ তাঁদের দাবি, জেলে আসার পর একেবারে শুরুতে তিনি যেভাবে ভিভিআইপি ভেক ধরে বসেছিলেন তা আপাতত ভেঙে পড়েছে জেলে অন্যবন্দীদের সঙ্গে একজন সাধারণ মানুষের মতো ব্যবহার করছেন তিনি। সব মিলিয়ে হাজতবাসে রামরহিম এখন সম্পূর্ণ অন্য মানুষ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here