Home Featured কুঁড়েঘর থেকে IIM-এর অধাপক, কঠিন জার্নি মানুষের সামনে তুলে ধরলেন রামচরণ

কুঁড়েঘর থেকে IIM-এর অধাপক, কঠিন জার্নি মানুষের সামনে তুলে ধরলেন রামচরণ

0
কুঁড়েঘর থেকে IIM-এর অধাপক, কঠিন জার্নি মানুষের সামনে তুলে ধরলেন রামচরণ
Parul

মহানগর ডেস্ক: সমস্ত প্রতিকূলতাকে হার মানিয়ে একজন ওয়াচম্যান থেকে হয়ে উঠলেন IIM এর সহকারী অধ্যাপক। নাম রঞ্জিত রামচরণ। নেট দুনিয়ায় সারা ফেলেছে তাঁর জীবনের স্মৃতিচারণ।

রঞ্জিত রামচরণ তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি রঞ্জিত আর পান্থুর নামেই পরিচিত। গত ৯ এপ্রিল তিনি নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট করেন। একটি জরাজীর্ণ মাটির বাড়ির ছবি। ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন, ‘একজন IIM অধ্যাপক এখানে জন্মগ্রহণ করেছিলেন।’ সোশ্যাল মিডিয়ার এই পোস্টে রঞ্জিত আরও জানিয়েছেন, ‘আমি ভেবেছিলাম পরিবারের অর্থাভাব এবং পারিপার্শ্বিক চেপে আমার পড়াশুনা বন্ধ হয়ে যাবে। কিন্তু ভাগ্যক্রমে কারাগোড়ের বিএসএনএল টেলিফোন এক্সচেঞ্জের ওয়াচম্যান পদে একটি চাকরি পাই। কলেজে অর্থনীতির ডিগ্রি অর্জনের পাশাপাশি রাতে ওই টেলিফোন এক্সচেঞ্জের ওয়াচম্যানের কাজ করতাম। এরপর অর্থনীতিতে স্নাতক হয়ে মাদ্রাজ আইআইটি তে ভর্তি হই। তবে শুধুমাত্র মালায়ালাম ভাষা জানার কারণে পিএইচডি সম্পূর্ণ করতে পারব না ভবেছিলাম। অধ্যাপক সুভাষ আমায় লড়াই ছাড়তে মানা করেন। তখনই আমি নিজের স্বপ্ন পূরণের জন্য লড়াইটা চালিয়ে নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিই।’ সোশ্যাল মিডিয়ায় করা রঞ্জিত রামচরনএর এই পোস্ট মুহূর্তে ভাইরাল হয়। ১১ হাজার মানুষ এটিকে শেয়ার করে। কেরলের অর্থমন্ত্রী টিএম থমাস আইজাক এই পোস্টে তাঁকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

গত বছর রামচরণ নিজের পি এইচ ডি শেষ করেন। গত দুমাস ধরে তিনি বেঙ্গালুরু খ্রিস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক। তিনি জানিয়েছেন, ‘আমি কখনোই ভাবিনি আমার এই পোস্টটি ভাইরাল হয়ে যাবে। আমি আমার জীবনের কাহিনী লিখেছিলাম শুধু মাত্র অন্যদের অনুপ্রেরণা যোগানোর জন্য। আমার কুঁড়ে ঘর থেকে IIM এর দূরত্ব ছিল অনেক। আমি সেই দূরত্বকে জয় করেছি। আমি চাইনা যে কোন সঙ্কটের কারণে কেউ পড়াশোনা ছেড়ে দিক। আমি চাই শিক্ষাকে হাতিয়ার করে যেন তাঁরা সব প্রতিকূলতা জয় করতে পারে। ঠিক আমি যে ভাবে পেরেছি আমি চাই প্রত্যেকে তাঁর স্বপ্ন পূরণের জন্য লড়াই করুক। এবং প্রতিষ্ঠিত হোক।’

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here