news bengali kolkata

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাঁকুড়া: সকাল থেকে বাঁকুড়ায় বৃষ্টি। আর তার মাঝেই এক বাড়িতে ইনকাম ট্যাক্স অফিসার পরিচয় দিয়ে ঢোকে বেশ কয়েকজন। কিন্তু তারপরেই গৃহকর্তীকে বেঁধে চলল লুঠপাট। প্রকাশ্য দিবালোকে শহরের এই ঘটনায় এলাকা জুড়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

সকাল থেকে বৃষ্টির সুযোগে খোদ বাঁকুড়া শহরের স্কুলডাঙাহাট এলাকার মহাতাব লেনের একটি বাড়িতে প্রকাশ্য দিবালোকে ঢুকে এক মহিলাকে বেঁধে রেখে লুঠপাঠ চালাল সাত-আট জনের দুষ্কৃতীদল।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মহাতাবলেনের নিজের বাড়িতে দীর্ঘদিন ধরে স্বামী সৌমেন দত্ত ও এক মেয়ের সঙ্গে থাকেন চৈতালী দত্ত। আরও দুই মেয়ে পড়াশোনার কারণে বাইরে থাকেন। নিজের বাড়িতেই কাপড়ের ব্যবসা ও বিউটি পার্লার রয়েছে চৈতালি দত্তর।

রবিবার সকালে চৈতালি দত্তর স্বামী কাজে বেরিয়েছিলেন। মেয়ে বেরিয়েছিলেন ডাক্তার দেখাতে। একাই বাড়িতে ছিলেন চৈতালি দত্ত। সেই সময় একটি গাড়িতে করে সাত-আট জন দুস্কৃতী বাড়িতে আসে। দরজায় কলিং বেল বাজলে দরজা খুলে দেন চৈতালি। ইনকাম ট্যাক্স অফিসার পরিচয়ে দুস্কৃতিরা বাড়ির ভেতরে ঢুকে তাঁকে বেঁধে ফেলে। একটি ইঞ্জেকশান দেওয়া হয় বলেও অভিযোগ। এরপর অবাধে লুঠপাঠ চালিয়ে চম্পট দেয় দুস্কৃতি দল। পরিচারিকা কাজ করতে এসে বাড়ির ভেতর থেকে গোঙানির শব্দ পান, বাইরে থেকে দরজা বন্ধ ছিল। দরজা খুলে পরিচারিকা দেখতে পান, বারান্দায় গৃহকর্তী বাঁধা অবস্থায় পড়ে আছেন। এরপরেই স্থানীয়দের খবর দেয় পরিচারিকা।

বাসিন্দারা বাঁকুড়া সদর থানায় বিষয়টি জানায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছান পুলিশের উচ্চ পদস্থ আধিকারিকরা। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। চৈতালী দত্ত অসুস্থ হয়ে পড়ায় তাঁকে বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজে পাঠানো হয়েছে। দিনের আলোয় খোঁদ বাঁকুড়া শহরের ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় দুঃসাহসিক ডাকাতির ঘটনায় এলাকা জুড়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here