নিজস্ব প্রতিবেদক, কোচবিহার: বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হল কোচবিহারের ঐতিহ্যবাহী মদনমোহনের রাস উৎসব। রাত ৯টা বেজে ৩০মিনিট নাগাদ মদনমোহন মন্দিরে মাননীয় জেলাশাসক তথা দেবত্তর ট্রাস্ট বোর্ডের সভাপতি কৌশিক সাহা রাসচক্র ঘুরিয়ে রাস উৎসবের সূচনা করেন। তার আগে বিশেষ পুজা অনুষ্ঠান হয় মন্দির প্রাঙ্গণে। সারা দিন উপাস থেকে বিশেষ পুজায় বসেন জেলাশাসক কোশিক সাহা। পাশাপাশি কোচবিহার সফরে এসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় রাস উৎসবের দিন পুজা দেওয়ার কথা বলে গিয়েছেন। সেই অনুযায়ী জেলাশাসক ও উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ মুখ্যমন্ত্রীর নামে পুজো দেন। রাসচক্র ঘুরিয়ে মেলার উদ্বোধনের পর সাধারন মানুষের জন্য মেলার দরজা খুলে দেওয়া হয়। আর তারপরেই মদনমোহন মন্দিরের গেটে ঢল নামে সাধারন মানুষের।

একই সঙ্গে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাস উৎসবকে কেন্দ্র করে কোচবিহার রাসমেলা ময়দানে কোচবিহার পুরসভার উদ্যোগে আয়োজিত মেলার উদ্বোধন করেন উত্তরবঙ্গ উনয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। ইতিমধ্যেই উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ মাননীয় মুখ্যমন্ত্রীর কাছে কোচবিহারের রাসমেলাকে জাতীয় মেলা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন। সব মিলিয়ে প্রায় ২০৬ বছরের পুরানো কোচবিহারের এই রাস উৎসবকে কেন্দ্র করে লাখো লাখো মানুষের সমাগম হয় কোচবিহারে। শুধু কোচবিহার জেলা নয় অসম, নেপাল ভুটান, বাংলাদেশ সব জায়গা থেকেই প্রচুর মানুষের সমাগম হয় কোচবিহারে।

কোচবিহারের এই রাস উৎসব ১৫ দিন ধরে চলবে। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের পাশাপাশি নেপাল, বাংলাদেশ, ভুটান দার্জিলিং, কাশ্মীর ভারতের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ব্যবসায়ীরা তাদের ব্যবসার পসার জমাবেন কোচবিহারের রাস মেলায়। এছাড়াও কোচবিহার পুরসভার পক্ষ থেকে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করা হবে। কোচবিহারে জেলাশাসক রাস উৎসবের সূচনা করার পরেই সাধারণ মানুষের জন্য রাস চক্র ঘোরাবার সুযোগ হয়ে থাকে। ১৫ দিন ধরে সেই মহারাজার আমলে থেকে হয়ে আসা রাস মেলাকে কেন্দ্র করে মানুষের আবেগ যেন সব কিছুকেই হার মানায়। সব মিলিয়ে কোচবিহারের রাসমেলা রাজ ঐতিহ্যের পরম্পরাকে টিকিয়ে রাখতে যেন এক অনন্য নিদর্শন আমাদের সামনে তুলে ধরে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here