ডেস্ক: সই না দেওয়ার অভিযোগ তুলে সারারাত ধরে স্বামীর বাড়ির সামনে ধর্নায় বসেছিলেন মেয়র স্ত্রী রত্না দেবী। সইতো মিলল না, উল্টে স্বামী শোভন চট্টোপাধ্যায়ের অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেপ্তার করা হল তাঁর স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়কে। এদিন সকালেই তাঁকে গ্রেপ্তার করে রবীন্দ্রসরোবর থানার পুলিশ।

মেয়ে জার্মানিতে পড়ার সুযোগ পেয়েছে। সেখানকার নিয়ম অনুযায়ী জার্মানির ভিসায় বাবা এবং মায়ের সাক্ষর থাকতে হবে। দুজনের মধ্যে বিচ্ছেদ মামলা চলার কারনে ভিসায় সাক্ষর করেননি শোভন চট্টোপাধ্যায়। আর তাতে বেজায় চটেন মেয়রের স্ত্রী। বৃহস্পতিবার রাতেই তিনি যান শোভনবাবুর গোলপার্কের বাড়িতে। সেখানে সারা রাত বাড়ির সামনে ধর্নায় বসেন তিনি। পুলিশের বারংবার অনুরোধের পর শুক্রবার সকালে ধর্না থেকে উঠে রবীন্দ্র সরোবর থানায় যান তিনি। সেখানে মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়ের অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেপ্তার করা হয় রত্না চট্টোপাধ্যায়কে।

তবে কলকাতার মেয়র কেন কন্যার বিদেশ যাত্রার পথে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছেন সে বিষয়ে কিছুই জানা যায়নি। তবে সই যে তিনি করবেন না স্ত্রীকে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন সে কথা। সব মিলিয়ে বেশকিছুদিন ধরে পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত থাকলেও ফের মেয়েকে কেন্দ্র করে ফের প্রকাশ্যে চলে এল শোভন-রত্নার ঘরোয়া কোন্দল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here