kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: ভোটের ফলাফল প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই রাজনৈতিক হিংসায় উত্তপ্ত ভাঙড়। কোথাও মারধর, বোমাবাজি এমনকী বাড়িত, দোকানে আগুন লাগানোর অভিযোগ উঠতে শুরু করে। এবার সেই হিংসার ঘটনা আটকাতে শুক্রবার সকাল থেকেই জায়গায় জায়গায় অভিযান চালাল ভাঙড়ের কাশীপুর থানার পুলিশ। শান্তি বজায় রাখতে মাইকিং করেও প্রচার চালায় পুলিশ। রাজনৈতিক হিংসা ছড়ানোর অভিযোগে বেশ কয়েকজনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

এদিকে, ক্যানিং পূর্বের আইএসএফ প্রার্থী শাহাবুদ্দিন সিরাজির বাড়ির পেছন থেকে প্রচুর তাজা বোমা উদ্ধার করল পুলিশ। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে ভাঙড় থানার পুলিশ শুক্রবার শাহাবুদ্দিন সিরাজির বাড়ির পেছনে হানা দেয়। সেখানে ঝোপঝাড়ের মধ্যে থেকে কয়েকটি ব্যাগ উদ্ধার হয়। সেই ব্যাগের মধ্যে ছিল তাজা বোমাগুলি। পুলিশ সূত্রে খবর, প্রায় কুড়িটি তাজা বোমা মজুৎ করা ছিল। বোমাগুলি ভাঙড় থানার পুলিশ উদ্ধার করে। ঘটনার খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই স্থানীয় তৃণমূল নেতা আলাউদ্দিন মোল্লা ঘটনাস্থলে আসেন। তাদের দাবি, এলাকায় সন্ত্রাস সৃষ্টি করার জন্য শাহাবুদ্দিন সিরাজি বোমা মজুত করেছিকেন। পুলিশ গোপন সূত্রে খবর পেয়ে বোমাগুলি উদ্ধার করে।

আলাউদ্দিনের এই অভিযোগ অস্বীকার করে শাহাবুদ্দিন সিরাজি জানান, ভোট গণনার পর থেকেই তিনি ঘরছাড়া। তার বাড়িতে ব্যাপক ভাঙচুর করেছে তৃণমূল কর্মীরা। এর পাশাপাশি ক্যানিং পূর্ব বিধানসভা জুড়ে সমস্ত আইএসএফ কর্মীর বাড়িঘর লুট করেছে তৃণমূল। বাড়িতে না থাকার সুযোগ নিয়েই তৃণমূল কর্মীরা এই বোমা রেখে আজ তার নামে দোষ দিচ্ছে। উদ্ধারের পর পুলিশ বম্ব স্কোয়াড দলকে জানিয়েছে। তারা এসে বোমাগুলি নিষ্ক্রিয় করে। পুলিশ বোমা উদ্ধারের পর স্বতঃপ্রণোদিত ভাবে মামলা রুজু করে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here