নিজস্ব প্রতিবেদক, শিলিগুড়ি: মোর্চার কাঁধে হাত রেখে প্রায় দশক পাহাড় থেকে নিজেদের নেতাদের জিতিয়ে এনেছে গেরুয়া শিবির। কিন্তু এখন সেই দিন ফুরিয়েছে। পাহাড়ে পায়ের নীচের মাটিই সরে গিয়েছে মোর্চার বিমল গুরুং – রোশন গিরিদের অনুগামীদের। ক্ষমতার ভর এখন বিনয় তামাং – অনিল থাপার ওপর। এই অবস্থাতেও পাহাড়ের মায়া কাটাতে পারেনি বিজেপি। উল্টে গুরুংয়ের হাত ধরেই ফের পাহাড়ে জেতার খোয়াব দেখছে তারা। দুইয়ের সঙ্গে দোসর হয়েছে আবার জিএনএলএফ। ঠিক হয় দার্জিলিং লোকসভা আসনে বিজেপি দেবে প্রার্থী আর তাকে সমর্থন দেবে মোর্চার গুরুং শিবির ও জিএনএলএফ। তিনে মিলেই লড়াই করবে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। কিন্তু বর্তমান সাংসদ সুরেন্দ্র সিং আলুওয়ালিয়া জানিয়ে দিয়েছেন তিনি আর ভোটে লড়বেন না। তার জায়গায় প্রার্থী খুঁজতে আগেই চাপে পড়েছিল গেরুয়া শিবির। প্রার্থী যাও বা পাওয়া গেল সে যে বাংলা নিয়ে কিছুই চেনে না সেটাও ধরা পড়ে গেল তার বাগডোগরা বিমানবন্দরে পা রাখার সঙ্গে সঙ্গেই। তার বক্তব্য, ‘বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ নাকি বাংলা থেকে ৫০টি আসন জেতার পরিকল্পনা নিয়েছেন।’ দার্জিলিংয়ে বিজেপির ঘোষিত প্রার্থী রাজু ভিস্তের মুখে এহেন কথা শুনে বিজেপি বিরোধী শিবিরের নেতটকর্মীরা হেসে মরছে। শুরু হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়াতে ট্রোল হওয়ার পালাও। মাঝখান থেকে মুখ লুকিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে বিজেপি নেতারাই।

সোমবার দিল্লি থেকে সরাসরি বাগডোগরা বিমানবন্দরে এসে পৌঁছালেন দার্জিলিং লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী রাজু ভিস্ত। যদিও তিনি কোন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে এতদিন সরাসরি যুক্ত ছিলেন না, তবে ঘনিষ্ঠ ছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রাজনাথ সিং ও বিমল গুরুংয়ের। পেশায় তিনি ব্যবসায়ী হলেও বেশির ভাগ সময়ই কাটান দিল্লিতে। জন্মও তার বাংলায় নয়, মণিপুরে। সেই তিনি রাজু ভিস্ত বাগডোগরা বিমানবন্দরে এসে জানালেন যে বিজেপি প্রার্থী হওয়াতে তিনি খুশি ও আশাবাদী যে বিজেপি এই আসনটি পুনরায় জয় করবে। আর তারপরেই সেই বেফাঁস মন্তব্য, বাংলায় নাকি ৫০টা লোকসভার আসন আর তার সবই নাকি জিতবে বিজেপি। এই মন্তব্যের ভিডিওই ভাইরাল হয়েছে ফেসবুক থেকে হোয়াটসঅ্যাপের মত সোশ্যাল মিডিয়ায়। তারই মধ্যে বিনয়পন্থী মোর্চা সমর্থকরা সুকনার কাছে কালো পতাকা দেখায় দার্জিলিং লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থীকে। একই সঙ্গে বিজেপি গো ব্যাক স্লোগানও দেয় তারা। বিজেপি সূত্রে খবর মঙ্গলবার দার্জিলিং লোকসভা কেন্দ্রের জন্য মনোনয়নপত্র জমা দেবেন রাজু।

 

কিন্তু বাংলায় পা রেখেই রাজু যে ড্যামেজটি করে দিয়েছেন তা কিভাবে ম্যানেজ করা যাবে তা নিয়েই এখন চিন্তায় পড়েছেন গেরুয়া শিবিরের নেতা। ইতিমধ্যেই তৃণমূলের নেতারা রাজুর মন্তব্য ঘিরে কটাক্ষ হানতে শুরু করে দিয়েছেন। তারা সরাসরি জানাছেন, ‘যে লোকটা বাংলাকেই চেনে না জানে না, বাংলায় কটা লোকসভা আসন রয়েছে সেটাই জানে না, সে আবার ভোটে পাহাড় থেকে জেতার স্বপ্ন জিতছে। ওর স্বপ্ন স্বপ্নই থেকে যাবে। বিজেপি, জিএনএলএফ আর গুরুং বাহিনী কতটা দেউলিয়া হয়ে গিয়েছে তা তাদের প্রার্থীকে দেখলেই বোঝা যায়।’ রাজুর বক্তব্য সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোল হতে শুরু করার পরেই তা নিয়ে বিস্তর হাসাহাসি শুরু হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে আসরে নামেন স্থানীয় বিজেপি নেতারা। তারা বলেন, ‘রাজনীতিতে নবাগত রাজু ভিস্ত। উনি বলতে চেয়েছেন ৫০ শতাংশ আসনে জিতব।’ তবে গেরুয়া শিবিরের নেতাদের এই বক্তব্য ধোপে টেকেনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here