kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: প্রথম তিন দফার ভোটে বেশকিছু অশান্তি হয়েছে এই রাজ্যে। প্রথম দুই দফায় সেই অশান্তি সীমাবদ্ধ ছিল তৃণমূল ও বিজেপি মধ্যে। পরের দফায় তৃণমূল বিজেপির পাশাপাশি সেই অশান্তিতে নাম জড়ায় সংযুক্ত মোর্চার। এখনও পর্যন্ত হওয়া তিন দফার ভোটে দেখা গিয়েছে, নিজেদের গড় হিসেবে পরিচিত এমন বেশ কিছু জায়গায় তৃণমূল বুথ এজেন্ট নিয়ে বিড়ম্বনায় পড়ে। খোদ নন্দীগ্রামে একটি বুথে এজেন্ট হয়ে বসতে চাননি এক তৃণমূল কর্মী।

বুথ এজেন্ট বসানো নিয়ে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে তৃণমূলকে। যা তৃণমূলের জন্য স্বস্তির নয়। কয়েকদিন আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, এবার ডাকাবুকো মহিলাকে এজেন্ট করা হবে। আজ শ্রীরামপুরের সভা থেকে সেই বিষয়টি নিয়ে আরও একবার বার্তা দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেছেন, ভীতু এজেন্টের দূর করে দিন। দেখতে হবে কোথাও কাউন্টিং এজেন্ট যেন কম না হয়। ভোট কিন্তু দিতেই হবে। নয়তো জেলে যেতে হবে। হ্যারাস করলে এফআইআর করবেন। আর কোনও থানা এফআইআর না নিলে আমাদের বলবেন। আমরা দেখে নেব।

আজ শ্রীরামপুরের সভায় মমতা আরও বলেন, ‘আমাকে দিল্লি কা লাড্ডু দেখাবেন না। গুজরাটের ধোকলা আর কলকাতার রসগোল্লা এক হয় নাকি? মনে রাখবেন ক্যাশ আর গ্যাস এক হয় না। ক্যাশ দিয়ে ভোট কেন হয়। আর বিনা পয়সায় গ্যাস দাও, বলুন। ওরা সব ব্যাঙ্ক বন্ধ করে দিয়েছে। কোথায় যাবেন আপনি? এদের হঠান। ইকোনমি ডিজাস্টার, দুঃশাসন, দুর্যোধনের দল কোথাকার। ব্যাঙ্কে টাকা চাইতে গেলে আপনাকে খানিকটা গোমূত্র দিয়ে দেবে। তাই ভেবে ভোট দেবেন।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here